বাংলা ট্রিবিউন
যাত্রীর পাসপোর্ট আটকে চাঁদাবাজি: কাস্টমসের সেপাই গ্রেফতার

যাত্রীর পাসপোর্ট আটকে চাঁদাবাজি: কাস্টমসের সেপাই গ্রেফতার

বিদেশ থেকে আগত যাত্রীর পাসপোর্ট আটকে রেখে চাঁদা দাবির ঘটনায় ঢাকা কাস্টম হাউসের সেপাই আছাদুল্লাহ্ হাবিব গ্রেফতার হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৬ ডিসেম্বর) রাতে দক্ষিণ খান এলাকায় যাত্রীর কাছ থেকে ১ লাখ টাকা চাঁদা নেওয়ার সময় হাতেনাতে আটক করা হয় তাকে। এ ঘটনায় দক্ষিণ খান থানায় মামলা করেছেন দুবাই ফেরত যাত্রী সজিব আহমেদ। জানা গেছে, ২৫ ডিসেম্বর দুবাই থেকে ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইটে (বিএস৩৪৪) ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসেন যাত্রী সজিব আহমেদ (২৮)। তিনি তার সঙ্গে ৫টি মোবাইল ফোন নিয়ে আসেন। ফোনগুলোর জন্য বিমানবন্দরের ডিউটিরত কাস্টমস্ কর্মকর্তারা শুল্ক প্রদানের জন্য বলেন। যাত্রী সজিব আহমেদ ৭৯ হাজার ১৫২ টাকা শুল্ক প্রদান করেন। (ট্যাক্স রশিদ নম্বর ০২২৪০৯৩)। পরবর্তীতে ভুলবশত যাত্রী সজিব আহমেদ তার পাসপোর্টটি কাস্টমস এলাকায় ফেলে চলে আসেন। বাসার যাওয়ার পর তার মোবাইলে ভারতীয় একটি নম্বর থেকে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে কল করেন কাস্টমসের সেপাই আছাদুল্লাহ্ হাবিব (৩০)। পাসপোর্টটি ফেরত নেওয়ার জন্য ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন তিনি। টাকা নেওয়ার সময় তাকে হাতেনাতে আটক করে আর্মড পুলিশ সদস্যরা। তার বিরুদ্ধে  দক্ষিণখান থানায় মামলা করেছেন যাত্রী সজিব আহমেদ। মামলা নম্বর ৪৬/৪৫২ তারিখ-২৭/১২/২০২৩। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন দক্ষিণ খান থানার ডিউটি অফিসার  এসআই কবির। তিনি বলেন, চাঁদাবাজির মামলায় কাস্টমসের সেপাই আছাদুল্লাহ্ হাবিবকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সূত্র জানায়, কাস্টমসের সেপাই আছাদুল্লাহ্ হাবিবের বিরুদ্ধে এর আগেও অনৈতিক কাজে যুক্ত থাকার অভিযোগ ছিল। বিমানবন্দরে কর্মরত গোয়েন্দা সংস্থার হাতে ধরা পড়ে সে। পরবর্তীতে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে কাস্টম হাউসে পাঠানো হলেও কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। মামলার এহজারে বলা হয়েছে, যাত্রী সজিব আহমেদের মোবাইলে ভারতীয় নম্বর ব্যবহার করে হোয়াটস অ্যাপ থেকে জানানো হয়, আপনার পাসপোর্টটি আমার কাছে আছে। কীভাবে তার পাসপোর্টটি পেয়েছে যাত্রী সজিব তা জানতে চাইলে কল করা ব্যক্তি জানান তিনি এয়ারপোর্টে থাকেন, পাসপোর্ট এয়ারপোর্টের মধ্য পেয়েছেন। অতঃপর যাত্রী সজিব ওই ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলেন। তার পাসপোর্ট ফেরত দিতে এক লাখ টাকা দাবি করে কাস্টমসের সেপাই আছাদুল্লাহ্ হাবিব। টাকা না দিলে পাসপোর্টটি নষ্ট করে ফেলাল হুমকিও দেওয়া হয়। আতংকে যাত্রী সজিব এক লাখ টাকা দিতে রাজি হন। পরবর্তীতে সেই ব্যক্তি যাত্রী সজিবকে টাকা নিয়ে দক্ষিণখান থানাধীন আশিয়ান সিটি পয়সা বাজারে যেতে বলেন। এহজারে বলা আরও হয়েছে, এ ঘটনার বিষয়ে যাত্রী সজিব আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নকেও লিখিত অভিযোগ দেন। পরবর্তীতে ২৬ ডিসেম্বর বিকালে যাত্রী সজিবকে সঙ্গে নিয়ে অভিযান পরিচালনা করে বিমানবন্দর আর্মড ‍পুলিশ। দক্ষিণ খান থানা এলাকার আশিয়ান সিটি পয়সা বাজার এলাকায় অবস্থান নেয় আর্মড পুলিশ সদস্যরা। যাত্রী সজিব আহমেদ সঙ্গে দেখা করতে আসেন এক ব্যক্তি। তখন সেই ব্যক্তি সজিবকে ভয়ভীতি দেখাতে থাকেন। ওই ব্যক্তিকে সজিব এক লাখ টাকা চাঁদা দেওয়ার সময় হাতেনাতে আটক করে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশের সদস্যরা। পরবর্তীতে ওই ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়। ওই ব্যাক্তি ঢাকা কাস্টম হাউসের সিপাহী আছাদুল্লাহ্ হাবিব। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কর্মরত সে।
Published on: 2023-12-27 15:12:23.243116 +0100 CET

------------ Previous News ------------