বাংলা ট্রিবিউন
চাপ বেড়েছে মেট্রোরেলে, ট্রেন বাড়ানোর দাবি যাত্রীদের

চাপ বেড়েছে মেট্রোরেলে, ট্রেন বাড়ানোর দাবি যাত্রীদের

সকাল থেকে রাত নাগাদ রাজধানীর এক প্রান্ত থেকে শহরের কেন্দ্রস্থল পর্যন্ত চলছে মেট্রোরেল। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রীসংখ্যা বেড়েছে বহুগুণ। শুধু সকাল-সন্ধ্যা অফিস টাইমে নয়, সারাদিনই নানা কাজে যাতায়াতের জন্য মেট্রোরেলকে বেছে নিচ্ছেন রাজধানীবাসী। ফলে প্রতিটি ট্রেনেই যাত্রীতে ঠাসা থাকছে৷ বিশেষ করে অফিস শুরু বা ছুটির সময়গুলোতে যাত্রীদের জন্য সব ট্রেনে জায়গা করে নেওয়াটাও কঠিন হয়ে যাচ্ছে। তাই অফিস ঘণ্টায় ১০ মিনিটের পরিবর্তে ৫ মিনিট পরপর ট্রেন চলাচলের দাবি জানিয়েছেন যাত্রীরা। গত শনিবার (২০ জানুয়ারি) থেকে উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত সকাল ৭টা ১০ মিনিট থেকে রাত ৮টা ৪০ পর্যন্ত চলাচল শুরু করে ঢাকা মেট্রোরেল। এতে রাত পর্যন্ত যখন খুশি তখন চলাচলের ‍সুযোগ পাচ্ছেন যাত্রীরা। পিক আওয়ারে ১০ মিনিট পর পর, আর অফ পিক আওয়ারে ১২ মিনিট পর পর ট্রেন আসা-যাওয়া করে। সোমবার (২২ জানুয়ারি) মেট্রোরেলের বিভিন্ন স্টেশন ঘুরে দেখা যায়, সকাল থেকেই যাত্রীদের লম্বা লাইন। সকাল-সন্ধ্যা পুরোপুরি চালু হওয়ায় নতুন করে অনেক যাত্রীই যুক্ত হচ্ছেন মেট্রোরেলে যাতায়াতে। ফলে নতুনদের একক যাত্রার টিকিট কাটতে লম্বা সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে। এদিকে পাসধারী যাত্রীরা সরাসরি প্ল্যাটফর্মে প্রবেশ করছেন। তবে প্রতিটি ট্রেনেই যাত্রীদের ভিড়। সন্ধ্যার দিকে কিছু কিছু স্টেশনের যাত্রীদের পরের ট্রেনে আসার জন্য প্ল্যাটফর্ম থেকে মাইকে অনুরোধ করা হয়। মেট্রোরেল ঢাকার চিত্র বদলে দেবে জানিয়ে মিরপুর-১০ মেট্রোরেল স্টেশনে হৃদয় কাজী নামে এক যাত্রী বলেন, মেট্রোরেলের কারণে আমরা অনেক উপকৃত হচ্ছি। এখন প্রত্যাশা আরও বেড়েছে। ঢাকায় আরও যেসব মেট্রোরেল তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে তা যেন দ্রুত সময়ে সম্পন্ন করা হয়। আমাদের অর্থ ও সময় অনেক বেঁচে যাবে। তখন ঢাকা অর্থনৈতিক একটা জোন হিসেবে বিশ্বে পরিচিত লাভ করবে। মেট্রোরেলে চলাচলে দুই-তৃতীয়াংশ সময় বেঁচে যাবে জানিয়ে বকুল দাশ বলেন, আগে চলাচলের সময় নানা প্রতিবন্ধকতা ছিল। কিন্তু ফার্মগেট- মতিঝিলে সারাদিনই লোক যাতায়াত করে। এখন রাত পর্যন্ত চালু হওয়ায় সুবিধা হয়েছে, যেকোনও সময়ই আমরা মেট্রোরেল ব্যবহার করছি৷ যারা এতদিন আগ্রহী ছিল না তারাও এখন মেট্রোরেল চড়ছে। এখন যা ভিড়, মানুষ অভ্যস্ত হয়ে গেলে ভিড় আরও বাড়বে। তখন আরও ভোগান্তির শঙ্কা করছি। তাই অন্তত দিনের ব্যস্ত সময়ে ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানো উচিত বলে মনে করি। মানুষ তো চড়ছে তাহলে ট্রেন বাড়াতে তো সমস্যা নাই। সেবার মান ধরে রাখার অনুরোধ জানিয়ে বাংলাদেশ সচিবালয় স্টেশনের যাত্রী মাইশা রহমান বলেন, শুরুর দিকে তো সবই ভালো। মানুষও অভ্যস্ত হচ্ছে ভিড় বাড়ছে। এখন এই ভালোটা সব সময় ধরে রাখাটা বিষয়। আশা করি মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ মান ধরে রাখবেন।
Published on: 2024-01-22 16:43:33.086135 +0100 CET

------------ Previous News ------------