বাংলা ট্রিবিউন
এক বিঘা জমিতে শিম চাষ করে লাভ দেড় লাখ টাকা

এক বিঘা জমিতে শিম চাষ করে লাভ দেড় লাখ টাকা

যশোরের শার্শায় আগাম গ্রীষ্মকালীন (ইপসা-১) হাইব্রিড জাতের শিমের বাম্পার ফলন হয়েছে। এই জেলার মাটি আগাম সবজি চাষের জন্য উপযোগী হওয়ায় দ্বিগুণ ফলন হচ্ছে। এতে আগাম শিম চাষে আশার আলো দেখছেন কৃষকরা। এ বছর উপজেলায় ৪৫ হেক্টর জমিতে আগাম শিম চাষ হয়েছে। জানা গেছে, কৃষক আতাউর রহমান শার্শা উপজেলার উলাশী-ব্লকে এক বিঘা জমিতে শিম গাছে ফুল ও ফলে ভরে গেছে। তিনি গত জুলাই মাসে জমিতে আগাম জাতের শিমের বীজ রোপণ করেন। রোপণের ৪৫ দিন পর গাছে ফল আসতে শুরু করে। আর প্রায় ৬০ দিন পর গাছ থেকে শিম উত্তোলন করা শুরু করেন। চারা রোপণ, সেচ দেওয়া, সার প্রয়োগ, আগাছা দমন, কীটনাশক ও মাচা তৈরিসহ তার  মোট ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। বর্তমান বাজারে ৬০ থেকে ৮০ টাকা দরে শিম পাইকারি বিক্রি করছেন তিনি। আতাউর রহমান বলেন, আমি এক বিঘা জমিতে শিম চাষ করেছি। প্রতি সপ্তাহে জমি থেকে চার মণ করে শিম তুলতে পারছি। বাজারে শিমের ভালো দাম পাচ্ছি। সব খরচ বাদ দিয়ে প্রায় এক থেকে দেড় লাখ টাকা লাভ করতে পারবো। তিনি আরও বলেন, শার্শা কৃষি অফিস থেকে আমার হাইব্রিড জাতের এই শিম বীজ দিয়েছিল। এই শিমের নাকি ফলন অন্য শিমের চেয়ে বেশি হয়। তাই আমি এই জাতের শিমের চাষ করেছি এবং অনেক লাভবান হয়েছি। কৃষি অফিস থেকে তারা প্রতিনিয়ত খোঁজ নিচ্ছেন। শার্শা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দীপক কুমার সাহা বলেন, শিম শীতকালীন সবজি হলেও আমাদের দেশে আগাম (গ্রীষ্মকালীন) শিমের চাষ করা হয়। বর্তমানে আগাম (ইপসা-১) হাইব্রিড শিম চাষ করে কৃষকরা লাভবান হচ্ছেন। বাজারে আগাম শিমের দামও ভালো। তাই কৃষকরা দিন দিন এই আগাম জাতের শিম চাষে আগ্রহী হচ্ছেন। আমরা কৃষকদের সব ধরনের সহযোগিতা করছি। এই শিম শ্রাবণ মাসে রোপণ করা হয়। রোপণের ৪৫ দিন পর গাছে শিম ধরতে শুরু করে। এ বছর উপজেলাতে ৪৫ হেক্টর জমিতে আগাম শিম চাষ হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় গত বছরের চেয়ে এ বছর শিমের ভালো ফলন হয়েছে।
Published on: 2024-01-29 04:41:19.75759 +0100 CET

------------ Previous News ------------