বাংলা ট্রিবিউন
দুই-তিন দিনের মধ্যে কমছে না তাপমাত্রা

দুই-তিন দিনের মধ্যে কমছে না তাপমাত্রা

তাপমাত্রা কমে গেছে। বেড়েছে শীতের প্রকোপ। হিমেল-কনকনে ঠান্ডা বাতাসে জবুথবু দেশের মানুষ।  বর্তমানে দেশের তিন জেলা দিনাজপুর, পঞ্চগড় ও নীলফামারীর ওপর দিয়ে শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। আরও ৯ জেলার তাপমাত্রা এখন ১১ ডিগ্রির নিচে। অন্যান্য অঞ্চলের তাপমাত্রাও আগের চেয়ে কমে গেছে। আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, আগামী দুই-তিন তাপমাত্রা প্রায় একই রকম থাকতে পারে। পাশাপাশি কিছু এলাকার তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে বলেও আবহাওয়া অধিদফতর জানাচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৭ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  এছাড়া দিনাজপুরে ৯ দশমিক ৫, ডিমলায় ১০, চুয়াডাঙ্গায় ১০ দশমিক ২, সৈয়দপুরে ১০ দশমিক ৪, রাজারহাটে ১০ দশমিক ৫, রাজশাহীতে ১০ দশমিক ৮, বদলগাছি ও ঈশ্বরদীতে ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। এদিকে ঢাকার তাপমাত্রা নেমেছে কয়েক ডিগ্রি। বুধবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৪ দশমিক ৯, যা গত ১ জানুয়ারি ছিল ১৫ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস । আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বলেন, বুধবার তিন জেলার ওপর দিয়ে শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এটি অব্যাহত থাকতে পারে।  তবে কিছু এলাকায় তাপমাত্রা বাড়তে পারে। সব মিলিয়ে শীতের তীব্রতা অনুভূত হলেও তাপমাত্রা আগামী কয়েকদিন কমার কোনও শঙ্কা নেই। তবে ১০ জানুয়ারির পর কোথাও কোথাও আবার তাপমাত্রা নেমে যেতে পারে। আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়,  চলতি মাসে দেশে স্বাভাবিকের চেয়ে কিছুটা কম বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। এ মাসে দেশে এক থেকে দুটি মৃদু (৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস) বা মাঝারি (৬ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। দিন ও রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি থাকতে পারে। এ মাসে দেশের উত্তর, পশ্চিমাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে এবং নদ-নদী অববাহিকায় মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা এবং অন্যান্য এলাকায় হালকা বা মাঝারি কুয়াশা পড়তে পারে। ঘন কুয়াশা পরিস্থিতি কোথাও কোথাও দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, উপ-মহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে, যার বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। আগামী তিন দিনের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, আগামী ২৪ ঘণ্টা শৈত্যপ্রবাহ থাকলেও কিছু এলাকায় বাড়বে তাপমাত্রা। এর মধ্যে অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারা দেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। কুয়াশার বিষয়ে বলা হয়, মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারাদেশে মাঝারী থেকে অতি ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং এটি দেশের কোথাও কোথাও দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। অতি ঘন কুয়াশার কারণে বিমান চলাচল, অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন এবং সড়ক যোগাযোগে বিঘ্ন ঘটতে পারে। তাপমাত্রার বিষয়ে বলা হয়, সারা দেশে রাত এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। অতি ঘন কুয়াশার কারণে দিনে ঠান্ডা পরিস্থিতি বিরাজ করতে পারে। শৈত্যপ্রবাহের বিষয়ে বলা হয়, দিনাজপুর, পঞ্চগড় এবং নীলফামারী জেলাসমূহের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারী ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে। এরপর দিন অর্থাৎ বৃহস্পতিবারের পূর্বাভাসে বলা হয়, মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারাদেশে মাঝারী থেকে অতি ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং এটি দেশের কোথাও কোথাও দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। অতি ঘন কুয়াশার কারণে বিমান চলাচল, অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন এবং সড়ক যোগাযোগে বিঘ্ন ঘটতে পারে। এসময় সারা দেশে রাত এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। অতি ঘন কুয়াশার কারণে দিনে ঠান্ডা পরিস্থিতি বিরাজ করতে পারে। ৫ ডিসেম্বর শুক্রবারের পূর্বাভাসে বলা হয়, সারাদেশে রাত এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। অতি ঘন কুয়াশার কারণে দিনে ঠান্ডা পরিস্থিতি বিরাজ করতে পারে।
Published on: 2024-01-03 16:42:14.373883 +0100 CET

------------ Previous News ------------