বাংলা ট্রিবিউন
ভোটে নির্বাচিত নারী এমপি ১৯ জন

ভোটে নির্বাচিত নারী এমপি ১৯ জন

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ১৯ জন নারী নির্বাচিত হয়েছেন। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাসহ দলটির ১৫ নারী প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া আওয়ামী লীগ মনোনিত একজন নারী প্রার্থী এগিয়ে রয়েছেন। অপরদিকে স্বতন্ত্র  প্রার্থী হিসেবে চার জন নারী জয়ী হয়েছে। এবার সংসদ নির্বাচনে নারী প্রার্থী ছিলেন ৯৬ জন। এছাড়া দুই জন ছিলেন হিজড়া। দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে মোট প্রার্থী এক হাজার ৯৬৯ জন। একাদশ সংসদ নির্বাচনে ৬৯ নারী প্রার্থী সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ২২ জন নির্বাচিত হয়েছিলেন। বাংলাদেশের ইতিহাসে সেটাই ছিল সর্বোচ্চ সংখ্যক নারী নির্বাচিত হওয়ার রেকর্ড। গত সংসদে জাতীয় পার্টি থেকে দু’জন ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) থেকে একজন নারী প্রার্থী নির্বাচিত হলেও এবার অন্য কোনও দলের নারী প্রার্থীরা জয়ী হতে পারেনি। আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত নারী সংসদ সদস্য হলেন— রংপুর-৬ আসনে ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, গাইবান্ধা-৩ আসনে উন্মে কুলসুম স্মৃতি, বগুড়া-১ আসনে সাহাদারা মান্নান, সিরাজগঞ্জ-২ আসনে জান্নাত আরা হেনরি, বাগেরহাট-৩ আসনে হাবিবুন নাহার, বরগুনা-২ আসনের সুলতানা নাদিরা, শেরপুর-২ আসনে মতিয়া চৌধুরী, কিশোরগঞ্জ-১ আসনের সৈয়দা জাকিয়া নূর, মুন্সীগঞ্জ-২ আসনে সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, গাজীপুর-৪ আসনে রুমানা আলী, গাজীপুর-৪ আসনে সিমিন হোসেন রিমি,  গোপালগঞ্জ-৩ আসনে শেখ হাসিনা, চাঁদপুর-৩ আসনে দীপু মনি, চট্টগ্রাম-২ আসনের খাদিজাতুল আনোয়ার এবং কক্সবাজার-৪ আসনের শাহীন আক্তার। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে গাইবান্ধা-১ আসনের আব্দুল্লাহ নাহিদ নিগার, মাদারীপুর-৩ আসনে মোসা. তাহমিনা বেগম, সুনামগঞ্জ-২ আসনে জয়া সেনগুপ্ত ও হবিগঞ্জ-১ আসনের আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী এবার বিজয়ী হয়েছেন। এদের মধ্যে ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল্লা নাহিদ নিগারের মা সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আফরুজা বারী একই আসন থেকে নৌকার মনোনয়ন পেয়েছিলেন। তবে জাতীয় পার্টির সঙ্গে আসন সমঝোতায় তিনি প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেন। মাদারীপুর-৩ আসনের বিজয়ী তাহমিনা বেগম একাদশ জাতীয় সংসদের আওয়ামী লীগ দলীয় সংরক্ষিত আসনের এমপি। জয়া সেনগুপ্ত একাদশ সংসদে নির্বাচিত এমপি হলেও এবার মনোয়ন পানি। পরে তিনি স্বতন্ত্র ভোট করে জয়ী হয়েছেন। অপর স্বতন্ত্র কেয়া চৌধুরী দশম জাতীয় সংসদে আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত আসনের এমপি ছিলেন। একটি আসনের নির্বাচন স্থগিত হওয়ার জন্য ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) আসনে ফলাফল প্রকাশ করেনি ইসি। এ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনিত নিলুফার আনজুম পপি নৌকা প্রতীকে ৫৩ হাজার ১৫৬ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী সোমনাথ সাহা ট্রাক প্রতীকে পেয়েছেন ৫২ হাজার ২১১ ভোট। এ আসনের স্থগিত কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা তিন হাজার ৩২ জন। দু’জনের ভোটের ব্যবধান ৯৮৫ ভোট। যার ফলে স্থগিত কেন্দ্রে আগামী ১৩ জানুয়ারি ভোটগ্রহণ শেষে চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করা হবে। একাদশ সংসদের নির্বাচিত নারী এমপিদের মধ্যে গাইবান্ধা-২ আসনে মাহাবুব আরা বেগম গিনি, খুলনা-৩ আসনে মন্নুজান সুফিয়ান ও নোয়াখালী-৬ আসনে আয়েশা ফেরদাউস এবার মনোনয়ন পাননি। এছাড়া মানিকগঞ্জ-২ আসনে মমতাজ বেগম, গাজীপুর-৫ আসনে মেহের আফরোজ চুমকি ও কুমিল্লা-১ সেলিমা আহমাদ মনোনয়ন পেলেও জিততে পারেনি। এছাড়া একাদশের নারী এমপিদের মধ্যে ফরিদপুর-২ আসনে সাজেদা চৌধুরী, ঢাকা-১৮ আসনে সাহারা খাতুন, নেত্রকোনা-৪ আসনে রেবেকা মমিন ও যশোর-৬ আসনে ইসমাত আরা সাদেক মারা গেছেন। এদিকে একাদশে বিজয়ী জাতীয় পার্টির এমপিদের মধ্যে ময়মনসিংহ-৪ আসনে রওশন এরশাদ এবার মনোনয়ন পাননি।  বরিশাল-৬ আসনে নাসরিন জাহান রত্মা মনোনয়ন পেলেও জিততে পারেন। জাসদের এমপি ফেনী-১ আসনে শিরীন আখতারও পাননি মনোনয়ন। জানা গেছে, ১৯৭৯ সালে প্রথম একজন নারী সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর ১৯৮৬ সালে পাঁচ জন, ১৯৮৮ সালে চার জন নারী সরাসরি নির্বাচিত হন। ১৯৯১ সালে ৩৯ প্রার্থীর মধ্যে পাঁচ জন, ১৯৯৬ সালে ৩৬ প্রার্থীর মধ্যে আট জন, ২০০১ সালে ৩৮ প্রার্থীর মধ্যে ছয় জন, ২০০৮ সালে ৫৯ প্রার্থীর মধ্যে ১৯ জন, ২০১৪ সালে ২৯ প্রার্থীর মধ্যে ১৮ জন নারী সরাসরি নির্বাচিত হন।
Published on: 2024-01-08 14:31:38.679802 +0100 CET

------------ Previous News ------------