বাংলা ট্রিবিউন
বইছে শৈত্যপ্রবাহ, কেমন যাবে পুরো সপ্তাহ?

বইছে শৈত্যপ্রবাহ, কেমন যাবে পুরো সপ্তাহ?

দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। ফলে অনুভূত হচ্ছে কনকনে ঠান্ডা। কিছু কিছু এলাকায় তা কিছুটা কমে আসতে পারে। আগামী চার-পাঁচ দিনে সারা দেশের তাপমাত্রা বাড়বে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া বিভাগ। এ সপ্তাহে দেশের কোথাও কোথাও বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানানো হয়েছে। আজ শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি)সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাস জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। তারা জানায়, কিশোরগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও চুয়াডাঙ্গা জেলাসহ রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা কিছু কিছু এলাকা থেকে প্রশমিত হতে পারে। উল্লেখ্য, শুক্রবার ভোর ৬টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া ও চুয়াডাঙ্গায় ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বোচ্চ চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে ২৮.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়াবিদ মো. শাহীনুল ইসলাম স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে আবহাওয়ার অবস্থা জানাতে গিয়ে বলা হয়, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বিহার ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারাদেশে হালকা থেকে মাঝারী ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। দক্ষিণাঞ্চলে রাতের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে এবং উত্তরাঞ্চলে তা বৃদ্ধি পেতে পারে। সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারা দেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারাদেশে হালকা থেকে মাঝারী ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। সারা দেশে রাত ও দিনের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে। রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে পরের ২৪ ঘণ্টায় অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারা দেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। হালকা থেকে মাঝারী ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। এছাড়া সারা দেশে রাত ও দিনের তাপমাত্রা এক থেকে দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস বাড়তে পারে। পাঁচ দিনের আবহাওয়ার পূর্বাভাস জানাতে গিয়ে আবহাওয়া বিভাগ বলছে, তাপমাত্রা আরও বাড়তে পারে এবং বৃষ্টিপাতের প্রবণতা রয়েছে।
Published on: 2024-02-09 06:50:14.973845 +0100 CET

------------ Previous News ------------