বাংলা ট্রিবিউন
শেষ দিনে যাত্রীসংকটে গাবতলী বাস টার্মিনাল

শেষ দিনে যাত্রীসংকটে গাবতলী বাস টার্মিনাল

সারা দেশে আনন্দঘন পরিবেশে আগামীকাল উদযাপিত হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর। অথচ ঈদযাত্রার শেষ দিনে যাত্রীসংকটে গাবতলী বাস টার্মিনাল। নেই ঈদে বাড়ি ফেরা মানুষের চাপ। গত দুই দিন কিছুটা চাপ থাকলেও, আজ কাউন্টার প্রায় যাত্রীশূন্য। কাউন্টারের কর্মীরা অবসর বসে আছেন। এ দিকে যাত্রীর অভাবে টার্মিনালে বিভিন্ন কোম্পানির বাস দাঁড়িয়ে রয়েছে, কেবল সিডিউলে থাকা গাড়িগুলো ছাড়া হচ্ছে।  এছাড়া বেশ কয়েকটি বাস কাউন্টার বন্ধ রাখা হয়েছে। বুধবার (১০ এপ্রিল) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত গাবতলী বাস টার্মিনাল ঘুরে এই চিত্র দেখা গেছে। বিভিন্ন কাউন্টারের টিকিট বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তারা আশানুরূপ যাত্রী পাচ্ছেন না। অতীতের তুলনায় সম্প্রতি বছরগুলোতে বিভিন্ন টার্মিনালে যাত্রী ভাগ হয়ে গেছে। তাছাড়া বিকল্প উপায়ে গ্রামের বাড়ি যাওয়ায় যাত্রী কমে গেছে বলে মনে করেন গাবতলী কাউন্টারের টিকিট বিক্রেতারা। রাবেয়া পরিবহনের কর্মী মাহবুব বলেন, ‘যাত্রী অনেক কমে গেছে। গত দুই দিন যাত্রী ছিল মোটামুটি। আজ একেবারে নাই বললেই চলে।’ কোম্পানির নাম টিকিয়ে রাখতে বাস ছাড়ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বাজারে টিকে থাকতে এখনও বাস ছাড়ছি। এছাড়া স্টাফদেরও খরচ আছে। বাস বসিয়ে রেখে লাভ হবে না।’ আরেক কাউন্টারের টিকিট বিক্রেতা বলেন, ‘পদ্মা সেতু হওয়ায় যাত্রী ভাগ হয়ে গেছে। দক্ষিণাঞ্চল যেতে সায়দাবাদের দিকে মানুষ ভিড় করছে। উত্তরবঙ্গের যাত্রীদের আমরা কিছুটা পাই। এছাড়া লোকাল বাসে, নানা উপায়ে মানুষ গ্রামে যাচ্ছে। তারা আগে গাবতলী ছাড়া যেতো না।’ সেবা পরিবহনের কাউন্টার ম্যানেজার মিজানুর রহমান বলেন, ‘বিকালে আমাদের দুই-তিনটা বাস আছে। বাসের কয়েকটা সিট এখনও অবিক্রিত। এবার যেহেতু লম্বা ছুটি, যাত্রীরা আগেই বাড়ি গেছে। অতিরিক্ত যাত্রী না হওয়ায় আমরা ট্রিপের বাইরে নতুন কোনও বাস নামাতে পারিনি।’ তবে বিকালে অল্প দূরত্বের যাত্রী কিছুটা বাড়বে বলে আশাবাদী তিনি। এদিকে জনপ্রিয় বাসগুলোর টিকিট না থাকলেও সিডিউল অনুযায়ী বাস ছাড়ছে। হানিফ এন্টারপ্রাইজ পরিবহনের কাউন্টার ম্যানেজার জাকির বলেন, ‘আজ যাত্রীদের চাপ নেই। সিডিউল অনুযায়ী আমাদের গাড়ি ছেড়ে যাচ্ছে।’ এদিকে টার্মিনালে যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঈদের ছুটি লম্বা হওয়ায় পরিবার-পরিজনের অনেকে আগেই ঢাকা ছেড়েছেন। যাদের কাজ ছিল, তারা আজ ঢাকা ছাড়ছেন। শেষ মুহূর্তে ভালো বাসের টিকিট না পাওয়া গেলেও অন্যান্য বাসের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে। ভাড়া বেশি চাইলেও এখন যাত্রী না থাকায় সেই দাবি বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পাচ্ছেন না। পরিবার নিয়ে গ্রামের বাড়ি যাচ্ছেন ইনামুল। তিনি বলেন, ‘যাত্রী একেবারে কম দেখছি টার্মিনালে। তবে যে বাসে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলাম, সেটার টিকিট নাকি অনেক আগেই শেষ। এখন কিছু বাসের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে। ভালো আসনই পেয়েছি।’
Published on: 2024-04-10 11:35:16.76028 +0200 CEST

------------ Previous News ------------