বাংলা ট্রিবিউন
১৭ অঞ্চলের তাপমাত্রা আজও ৪০ ডিগ্রির ওপরে, বেশি আর্দ্রতায় অস্বস্তি চরমে

১৭ অঞ্চলের তাপমাত্রা আজও ৪০ ডিগ্রির ওপরে, বেশি আর্দ্রতায় অস্বস্তি চরমে

বেড়েই চলেছে তাপমাত্রা। সকাল থেকে সূর্যের তাপে টেকা দায়। সকালে তপ্ত দুপুরের রোদের অনুভূতি নিয়েই দিন শুরু করছে সিলেট ছাড়া অন্য এলাকার সাধারণ মানুষ। গতকালের মতো আজও ১৭ অঞ্চলের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রির উপরে। এদিকে ঢাকার তাপমাত্রা আজ কিছুটা কমলেও বাতাসে জলীয়বাষ্পের (আর্দ্রতা) কারণে গরমের অস্বস্তিকর অনুভূতি তীব্র। তবে বুধবার, বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার সিলেট ছাড়াও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি হতে পারে। এতে তাপপ্রবাহ কিছুটা কমে আসতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। ঢাকায় আজকের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস,  যা গতকাল ছিল ৪০ দশমিক ৩ ডিগ্রি, রবিবার ছিল ৩৯ ডিগ্রি। এর আগের দিন শনিবার ছিল ৩৭ দশমিক ৪ ডিগ্রি। সে হিসেবে আজকের তাপমাত্রা কিছুটা কম। কিন্তু বাতাসে জলীয়বাষ্পের আধিক্যের কারণে অস্বস্তিকর একটা গরম অনুভূত হচ্ছে। সকালে তাপমাত্রা ৩৮ ডিগ্রিতে উঠে যায়। অফিসে যাবার সময়ই সাধারণ মানুষ ঘেমে নেয়ে অফিসে পৌঁছায়। আবার দিনশেষে অফিস থেকে ফেরার সময়ও একই অবস্থায় পড়ে সাধারণ মানুষ। পল্টনের একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করেন তাবাসুম আহমেদ। তিনি বলেন, সকালে বাসা থেকে বের হয়ে বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত এসেই ঘেমে নেয়ে গেছি। এরপর বাসে উঠে অফিসে পৌঁছাতে পৌঁছাতে গরমে মাথা ঘুরতে শুরু করে। এরপর অফিসের কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ি। ছুটির পরে গরমের মধ্যে আবার একইভাবে বাসায় ফেরাটা মনে হচ্ছিল শাস্তির মতো। ভয়ংকর গরমে অসুস্থ বোধ করছি। পরিচিত অনেকেরই অসুস্থ হবার খবর পাচ্ছি। দুপুরের দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার দোয়েল চত্বরে ঘামে ভিজে দাঁড়িয়ে থাকা রিকশাচালক আব্দুর রশিদ বললেন, আর রিকশা চালাতে পারবো না। আজকে আর আয় করা সম্ভব না। সন্ধ্যার পর মালিক অনুমতি দিলে আবার নামবো। এখন আর পারবো না। গরমে শরীর খুব খারাপ লাগছে। গুলিস্তান এলাকার জিরো পয়েন্টের ফুটপাতে বসা হকার নাজিম উদ্দিন বলেন, গত কয়েকদিনই গরমের মধ্যে কষ্ট করে বসি ঠিক।  কিন্তু সারাদিন লোকই আসে না। কেনাবেচা অনেক কমে গেছে। সন্ধ্যার পরে কিছু কাস্টমার পাওয়া যায়। তাও গরম সহ্য করে এত অল্প বিক্রিতে পোষায় না। অনেকে এখন দুপুরে দোকান বন্ধ করে চলে যায়। বিকালের রোদ পড়লে দোকান খুলছে। এইভাবে প্রায় সকল শ্রেণিপেশার মানুষ গরমের ভোগান্তিতে পড়েছেন। কবে নাগাদ এই ভোগান্তি কমতে পারে জানতে চাইলে আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক বলেন, বৃহস্পতিবার বা শুক্রবার ঢাকায় বৃষ্টি না হলেও আশেপাশের জেলাগুলোতে বৃষ্টি হতে পারে। এতে গরমের এই অস্বস্তিকর অনুভূতি কিছুটা কমে আসবে। তবে মে মাসে গরম। কমে যাবে এটা বলা যাবে না। এপ্রিল-মে মাস স্বাভাবিকভাবেই তাপমাত্রা অনেক বেশি থাকে। গরমের অনুভূতি বেশি হবে এটাই স্বাভাবিক। গতকাল সন্ধ্যা ৬টা থেকে আজ বেলা ৩টা পর্যন্ত দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা উঠেছে যশোরে ৪৩ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপরে থাকা অঞ্চলগুলো হচ্ছে—  টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, বাঘাবাড়ি, রাজশাহী, গোপালগঞ্জ, আরিচা, ঈশ্বরদী, বগুড়া,  বদলগাছি, খুলনা, মোংলা, তাড়াশ, দিনাজপুর, চুয়াডাঙ্গা, সাতক্ষীরা এবং কয়রা। এ হিসেবে দেশের প্রায় ১৭ অঞ্চলের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রির উপরে অবস্থান করছে। এসব এলাকার উপর দিয়ে মাঝারি থেকে তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এদিকে আবহাওয়াবিদ শাহানাজ সুলতানা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আজকে ১৭ অঞ্চলের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রির উপরে উঠেছে। বুধ, বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার সিলেট ছাড়াও ঢাকা বিভাগসহ আশেপাশের এলাকায় বৃষ্টি হতে পারে। এদিকে আবহাওয়া অধিদফতরের ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়,  চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। তাপপ্রবাহের বিষয়ে বলা হয়, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, পাবনা ও রাজশাহী জেলাগুলোর উপর দিয়ে অতিতীব্র তাপপ্রবাহ এবং খুলনা ও রাজশাহী বিভাগের অবশিষ্টাংশ এবং ঢাকা বিভাগের ওপর দিয়ে তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। ময়মনসিংহ জেলাসহ বরিশাল, রংপুর ও চট্টগ্রাম বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে। তাপমাত্রার বিষয়ে বলা হয়, সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। জলীয় বাষ্পের আধিক্যের কারণে অস্বস্তিভাব বিরাজমান থাকতে পারে। এদিকে বুধবারের পূর্বাভাসে বলা হয়, সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং চট্টগ্রাম বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে এবং সেই সাথে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে। এতে বিরাজমান তাপ প্রবাহ কিছু কিছু জায়গা হতে প্রশমিত হতে পারে। বৃহস্পতিবারের পূর্বাভাসে বলা হয়, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং ঢাকা ও বরিশাল বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে এবং সেই সাথে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। তাপপ্রবাহের বিষয়ে বলা হয়,  বিরাজমান তাপপ্রবাহের তীব্রতা হ্রাস পেতে পারে এবং দেশের পূর্বাঞ্চলে তা কিছু কিছু জায়গা হতে প্রশমিত হতে পারে। এদিক দেশের পূর্বাঞ্চলে দিনের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস হ্রাস পেতে পারে এবং অন্যত্র তা সামান্য হ্রাস পেতে পারে। দেশের পূর্বাঞ্চলে রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস হ্রাস পেতে পারে।
Published on: 2024-04-30 15:32:17.395553 +0200 CEST

------------ Previous News ------------