ইত্তেফাক
পেঁয়াজের বাজার অস্থির দাম বাড়ছে লাফিয়ে

পেঁয়াজের বাজার অস্থির দাম বাড়ছে লাফিয়ে

*ভারতের রপ্তানি বন্ধ ঘোষণার পর দেশে পেঁয়াজের বাজারে রীতিমতো অস্থিরতা তৈরি হয়েছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় এই পণ্যের দাম বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। অবস্থা এমন যে, সকালে এক দাম তো বিকেলে আরেক দাম। এ অবস্থায় ভোগান্তিতে পড়েছে ভোক্তারা। বাজারের এই অস্থিরতায় অনেকে আবার একসঙ্গে বেশি পরিমাণে পেঁয়াজ কিনতে গিয়ে পরিস্থিতি আরও জটিল করে তুলছে। গতকাল শনিবার রাজধানীর কাওরান বাজার, শান্তিনগর ও তুরাগ এলাকার নতুন বাজারসহ বিভিন্ন খুচরা বাজারে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ২৩০ থেকে ২৪০ টাকা এবং আমদানিকৃত পেঁয়াজ ২০০ থেকে ২১০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে, যা দুই দিন আগে গত বৃহস্পতিবার মানভেদে ১০০ থেকে ১৩০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছে।* অর্থাৎ, দুই দিনের ব্যবধানে প্রতি কেজি পেঁয়াজে ১০০ টাকার বেশি বেড়েছে। পেঁয়াজ আমদানিকারকেরা বলেছেন, হঠাৎ করে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। সরকারের উচ্চপর্যায়ে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে সমাধানের দাবি জানান তারা। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ ইত্তেফাককে বলেছেন, পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের বিষয়টি নিয়ে ভারতের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর গতকাল এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে ঢাকাসহ সারা দেশে অভিযান চালানো হবে। আমাদের হাকিমপুর (দিনাজপুর) সংবাদদাতা জানিয়েছেন, ভারতের রপ্তানি বন্ধের ঘোষণায় হিলি স্থলবন্দরের মোকামে ঘণ্টায় ঘণ্টায় বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। বন্দরের মোকাম ঘুরে দেখা গেছে, গত শুক্রবার বাংলা হিলি বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৮০-৯০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছিল। কিন্তু ভারতের রপ্তানি বন্ধের ঘোষণায় গতকাল শনিবার সকাল থেকে ১৬০-১৭০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২২০ টাকা দামে। চট্টগ্রাম অফিস জানিয়েছে, গতকাল শনিবার খাতুনগঞ্জের পাইকারি বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ১৮০ থেকে ২০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। পাইকারিতে দাম বাড়ার কারণে খুচরায় ২২০ থেকে ২৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ অবস্থায় গতকাল খাতুনগঞ্জে পেঁয়াজের আড়তে অভিযান চালিয়েছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোহাম্মদ ফয়েজ উল্যাহ বলেন, আমরা আগের দামে বিক্রি করতে বলেছি। ভারতীয় ও চীনা পেঁয়াজ কেনার রসিদ দেখাতে পারেননি আড়তদারেরা। চন্দনাইশ (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা জানান, হঠাৎ করে পেঁয়াজের দাম এত বেশি বাড়ায় ক্রেতারা হতভম্ব হয়ে গেছে। উপজেলার চন্দনাইশ সদর, গাছবাড়িয়াসহ বিভিন্ন স্থানে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ২০০ থেকে ২৫০ টাকা হাঁকা হচ্ছে। ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) সংবাদদাতা জানান, এক রাতের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণ বেড়ে যাওয়ায় উপজেলা প্রশাসনের বাজার মনিটরিংয়ে তিন ব্যবসায়ীকে অর্থদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি জানান, দেশের অন্যতম প্রধান পেঁয়াজের মোকাম ঝিনাইদহে এক দিনের ব্যবধানে পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম মণপ্রতি ৩ হাজার টাকা (কেজি প্রতি ৬২ টাকা) বেড়েছে। গতকাল শনিবার  সকালে পাইকারি বাজারে প্রতি মণ পেঁয়াজ সাড়ে ৭ হাজার টাকা দরে বিক্রি হতে দেখা যায়। আগের দিন দাম ছিল প্রতি মণ সাড়ে ৪ হাজার টাকা। কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) সংবাদদাতা জানান, ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের খবরে ব্যবসায়ীরা ইচ্ছেমতো দাম আদায় করে নিচ্ছেন বলে ক্রেতারা অভিযোগ করেছেন। এ ব্যপারে ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কোনো তৎপরতা দেখা যায়নি। মোংলা (বাগেরহাট) সংবাদদাতা জানান,  পেঁয়াজের দাম বাড়ায় শনিবার সকালে বাজারে এসে দাম শুনে চোখ যেন মাথায় উঠে গেছে ক্রেতাদের। বাড়তি দাম শুনে কেউ পেঁয়াজ না নিয়ে ফিরে গেছেন, আবার কেউ সাধ্যমতো স্বল্প পরিমাণ পেঁয়াজ কিনে বাড়ি ফিরছেন। নাটোর প্রতিনিধি জানান, শহরের স্টেশন বাজার, নিচাবাজার, মাদ্রাসা মোড় এলাকায় সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, খুচরা বাজারে দেশি পেঁয়াজ প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৮০ থেকে ১৯০ টাকায়। নিচাবাজারের খুচরা পেঁয়াজ বিক্রেতা নাদিম হোসেন বলেন, হঠাৎ ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণার পর পরই হুহু করে দাম বেড়ে চলেছে। রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) সংবাদদাতা জানান, লক্ষ্মীপুরের রায়পুর বাজারে এক দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞার খবর প্রকাশের পর থেকে এক লাফে বেড়ে গেছে পেঁয়াজের এই দাম। বাজারে আজ প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২২০-২৩০ টাকা দরে। রাজশাহীর থেকে স্টাফ রিপোর্টার জানান, ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞার খবরে স্থানীয় অসাধু ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজের দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন। পেঁয়াজের বাড়তি দাম নিয়ে ক্রেতারা অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা  জানান, পেঁয়াজের বাড়তি মূল্য রাখার অভিযোগে চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলায় উপজেলা প্রশাসনের মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করে ৬টি মামলায় ১২ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।
Published on: 2023-12-09 22:11:52.351257 +0100 CET