ইত্তেফাক
ভয়ঙ্কর পরিস্থিতিতে আছি, দেশের মানুষের কাছে বিচারের ভার দিলাম

ভয়ঙ্কর পরিস্থিতিতে আছি, দেশের মানুষের কাছে বিচারের ভার দিলাম

*নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূস অভিযোগ করেছেন, গ্রামীণ ব্যাংক তাদের ৮টি প্রতিষ্ঠান জবরদখল করেছে। এগুলো তাদের মতো করে চালাচ্ছে। পুলিশের কাছেও সহযোগিতা পাননি।* আজ বৃহস্পতিবার গ্রামীণ টেলিকম ভবনের নিচতলায় সংবাদ সম্মেলন করেন ড. ইউনূস। তিনি বলেন, নিজের অফিসে ঢুকতে পারবো কিনা- এটা এখন বাইরের লোকের এখতিয়ার হয়ে গেছে। আমি দুঃখ-কষ্টে পড়ে গেছি। ভয়ঙ্কর পরিস্থিতিতে আছি। নোবেলজয়ী এ অর্থনীতিবিদ বলেন, ভবনটা আমরা করেছি, এটা আমাদের স্বপ্নের বাস্তবায়ন। হঠাৎ ৪ দিন আগে বাইরের লোক এসে জবরদখল শুরু করে আর আমরা বাইরের লোক হয়ে গেলাম। এ সময় ছিলেন গ্রামীণ টেলিকমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল ইসলাম এবং গ্রামীণ কল্যাণের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ কে এম মঈনুদ্দিন চৌধুরী। রাজধানীর মিরপুরের গ্রামীণ টেলিকম ভবনে ড. ইউনূসের ১৬টি কোম্পানি রয়েছে। এর প্রতিটির চেয়ারম্যান ড. ইউনূস। তার অভিযোগ, গত ১২ ফেব্রুয়ারি গ্রামীণ ব্যাংকের পক্ষ থেকে এ ভবনে অবস্থিত আটটি অফিস দখল করে নেওয়া হয়। তিনি বলেন, ওই দিন থেকে তারা ভবনে তালা মেরে রেখেছে। নিজের বাড়িতে অন্য কেউ যদি তালা মারে, তখন কেমন লাগার কথা, আপনারাই বলেন। তাহলে দেশে আইন–আদালত আছে কিসের জন্য। তারা আদালতে যেতে চায় না। আমরা জীবনে বহু দুর্যোগ দেখেছি। এমন দুর্যোগ আর কখনো দেখিনি। পুলিশের কাছে সহযোগীতা চেয়েছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারা ঘুরে গিয়ে কোনো অসুবিধা দেখছেন না জানান! নোবেলজয়ী এ অর্থনীতিবিদ বলেন, মামলা হোক। আদালতে আমাদের অনেক মামলা চলমান। সেভাবে আমরা মোকাবিলা করবো। কিন্তু জবরদখল কেন! দেশের মানুষের কাছে বিচারের ভার দিলাম।
Published on: 2024-02-15 09:58:59.656913 +0100 CET