ইত্তেফাক
নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে গুলির শব্দ নেই, মাঠে ফিরেছেন কৃষকরা

নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে গুলির শব্দ নেই, মাঠে ফিরেছেন কৃষকরা

*মিয়ানমারের অভ্যন্তরে জান্তা বাহিনীর সঙ্গে সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলোর চলমান লড়াইয়ের মধ্যে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে গোলাগুলির শব্দ আপাতত থেমেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) থেকে আজ শুক্রবার এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত গোলাগুলি বা ভারী বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়নি।* তুমব্রু এলাকার কৃষক আবদুল জব্বার জানিয়েছেন, তার দশখানিতে ধান ক্ষেত রয়েছে। দুই সপ্তাহ আগেও গোলাগুলি ও মর্টার শেলের শব্দে ভয়ে কাজ না করে বাড়ি ফিরতে হতো। তবে কয়েকদিন ধরে গোলাগুলি না থাকায় ক্ষেতে কাজ করতে পারছেন। ঘুমধুম সীমান্তের ওপারে মিয়ানমারে গোলাগুলি বন্ধ থাকায় এখানকার মানুষ স্বস্তিতে রয়েছেন। তুমব্রু নদীর ধারে শীতকালীন সবজি ক্ষেত রয়েছে। রাখাইনে অস্থিরতার সময় যে চাষিরা ব্যাপক ক্ষতির মুখে ছিলেন, তারা এখন ক্ষতি পুষিয়ে নিতে দিন-রাত মাঠে কাজ করছেন। বাইশফাড়ি সীমান্তের বাসিন্দা মো. এরশাদ বলেন, দুই-তিনদিন ধরে ব্যাপক গোলাগুলির শব্দে আতঙ্কে ছিলাম। শুক্রবার ভোর থেকে কোনো গোলাগুলির শব্দ পাওয়া যায়নি। ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম জাহাঙ্গীর আজিজ বলেন, টানা কয়েক সপ্তাহ ঘুমধুম-তুমব্রু সীমান্তের বিপরীতে মিয়ানমারের মংডুতে থেমে থেমে গোলাগুলি ও গোলাবর্ষণের আওয়াজ শোনা গেলেও বৃহস্পতিবার থেকে সীমান্তে কোনো অস্থিরতা বা গোলাগুলির খবর পাওয়া যায়নি। সীমান্তের বাসিন্দারা নিজ নিজ কাজ-কর্ম চালিয়ে যাচ্ছেন। এর আগে ঘুমধুমের জলপাইতলীতে মর্টার শেলে দুইজনের মৃত্যু এবং তুমব্রুতে গুলিবিদ্ধ হয়ে পাঁচজন আহত হওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। যে কারণে সীমান্তবর্তী সাতটি স্কুল সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করা হয়। সংঘাতপূর্ণ পরিস্থিতিতে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষাকেন্দ্র অন্যত্র সরানো হয়েছে। পার্শ্ববর্তী উত্তর ঘুমধুমের দুটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কেন্দ্রে পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। পরিস্থিতি শান্ত হলেও বন্ধ হয়ে যাওয়া সাতটি স্কুল এখনও খোলেনি। জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ফরিদুল আলম হুসাইনি জানিয়েছেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করা হয়েছে। অনুমতি পাওয়ামাত্র বন্ধ স্কুলগুলো খুলে দেওয়া হবে। বিজিবি সূত্রে জানা যায়, সীমান্ত দিয়ে দুষ্কৃতিকারী ও রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে তারা। প্রতিদিনই অনুপ্রবেশকারীদের প্রতিহত করা হচ্ছে। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় বৃহস্পতিবার থেকে তুমব্রু সীমান্তে অতিরিক্ত টহল জোরদার করা হয়েছে।
Published on: 2024-02-23 11:02:13.856796 +0100 CET