ইত্তেফাক
ফোন করার পর থেকে কান্না থামছে না নাবিক সাজ্জাদের বাবা-মায়ের

ফোন করার পর থেকে কান্না থামছে না নাবিক সাজ্জাদের বাবা-মায়ের

*ভারত মহাসাগরে বাংলাদেশি পণ্যবাহী একটি জাহাজ এবং ২৩ নাবিক ও ক্রুকে আটক করেছে সোমালিয়ান জলদস্যুরা। ভুক্তভোগীদের মধ্যে রয়েছেন চট্টগ্রামের নাবিক সাজ্জাদ হোসেন (২৮)।* মঙ্গলবার (১২ মার্চ) দুপুরে নাবিক সাজ্জাদ বাড়িতে তার ভাবিকে ফোন করেন। ভাঙা ভাঙা কণ্ঠে সাজ্জাদ বলেন, ‘জলদস্যুরা আমাদের ঘিরে ফেলেছে। দোয়া করো।’ এ কথা বলেই ফোন কেটে দেন সাজ্জাদ। ফোন করার পর থেকে কান্না থামছে না মা সমশাদ বেগম ও বাবা গাজু মিয়ার। পরিবারের সবার মনে দুশ্চিন্তা বাড়তে থাকে। সাজ্জাদ হোসেনের বাড়ি চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার ১ নম্বর বৈরাগ ইউনিয়নে। সে মো. গাজু মিয়ার ছেলে। সাজ্জাদ পরিবারকে জানিয়েছে, জলদস্যুরা স্পিডবোট নিয়ে জাহাজটির চারদিকে ঘিরে ফেলে। একদল জাহাজে উঠে পড়ে। সবার হাতে ছিল অত্যাধুনিক অস্ত্র। জাহাজের সবাই আতঙ্কিত। চট্টগ্রামের কবির গ্রুপের মালিকানাধীন ২৩টি জাহাজের একটি এমভি আবদুল্লাহ। এর পণ্য পরিবহন ক্ষমতা ৫৮ হাজার টন। জাহাজটি কবির গ্রুপের সহযোগী সংস্থা এসআর শিপিং লিমিটেডের। মোজাম্বিকের মাপুতু বন্দর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাওয়ার পথে বাংলাদেশ সময় বেলা দেড়টায় জাহাজটিতে উঠে নিয়ন্ত্রণ নেয় সোমালিয়ার জলদস্যুরা। জাহাজটিতে ৫৫ হাজার টন কয়লা রয়েছে। জাহাজে থাকা ২৩ নাবিকের সবাই বাংলাদেশি।
Published on: 2024-03-13 08:45:06.657545 +0100 CET