যায়যায়দিন
পোস্টার ছেড়া নিয়ে আ.লীগের দ্বন্দ্ব : ঝিনাইদহে  ইউপি সদস্যকে পিটিয়ে হত্যা

পোস্টার ছেড়া নিয়ে আ.লীগের দ্বন্দ্ব : ঝিনাইদহে  ইউপি সদস্যকে পিটিয়ে হত্যা

ঝিনাইদহে শৈলকুপায় পাস্টার ছেড়া নিয়ে আওয়ামীলীগের দু-গ্রুপের দ্বন্দে হাবিবুর রহমান রিপন (৪৩) নামের এক ইউপি সদস্যকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এসময় জখম হয়েছে আরো ২ জন। সোমবার ভোররাত ৩ টার দিকে শৈলকুপার আবাইপুর ইউনিয়নের আবাইপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত হাবিবুর আবাইপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক, ৭নং ওয়ার্ডের বর্তমান নির্বাচিত মেম্বার ও মীন গ্রামের আবুল কালাম আজাদের ছেলে। এসময় ধারালো অস্ত্রেও আঘাতে জখম রাশিদুর রহমান রাসেল ও আমিনুর রহমানকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে। এদিকে ঘটনার পরপরই সদর হাসপাতালে নিহত ও আহতদের দেখতে যান জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ঝিনাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল হাই। হাসপাতালে আসা আহতরা জানায়, গত কয়েকদিন আগে স্থানীয় মীনগ্রাম বাজারে জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও ঝিনাইদহ-১ আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী নজরুল ইসলাম দুলালের একটি পোস্টার ছিড়ে দেয় কে বা কারা। এই নিয়ে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ঝিনাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল হাই এবং নজরুল ইসলাম দুলালের স্থানীয় সমর্থকদের মধ্যে বিবাদ চলছিল। এ নিয়ে গতকাল রোববার সন্ধ্যায় এবং রাতে কয়েকদফা বিরোধ মিমাংশায় শৈলকুপা থানায় বৈঠক হয়। কিন্তু অমিমাংশিত থাকে সে বৈঠক। পরে আব্দুল হাই সমর্থক আবাইপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের বর্তমান সদস্য হাবিবুর রহমান রিপনসহ কয়েকজন মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফিরছিল। পথিমধ্যে আবাইপুর বাজার পার হলেই প্রতিপক্ষের সমর্থকরা তাদের উপর হামলা করে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে আহত তিন জনকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে আনলে চিকিৎসক হাবিবুর রহমান রিপনকে কিছুক্ষণ পরেই মৃত ঘোষণা করেন। ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক নাঈম সিদ্দিকী জানান, নিহত ও আহতদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে পিটানোর আঘাত রয়েছে। এছাড়া নিহত হাবিবুর রহমানের মাথায় বড় ধরনের আঘাত আছে। সম্ভবত ইন্টারনাল ব্লেডিং এর কারনে তার মৃত্যু হতে পারে। শৈলকুপা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার অমিত কুমার বর্মণ জানান, এ ঘটনায় এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন শান্ত আছে। ঘটনাস্থলে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও উপস্থিত আছেন। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই জানান, আমার সমর্থক হাবিবুর রহমানকে যারা পিটিয়ে হত্যা করেছে তাদের শাস্তি হোক। খুন মহাপাপ। এটা করা ঠিক হয়নি। বিস্তারিত আরো জেনে পরে মন্তব্য করবো। তবে অভিযোগের বিষয়ে মন্তব্য জানতে ফোন করা হলে জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম দুলাল জানান, আমি ঢাকাতে আছি, শুধু শুনেছি একজন মারা গেছে। তবে কি দিয়ে কি হয়েছে তা বলতে পারছিনা। যাযাদি/ এস
Published on: 2023-10-16 07:34:04.166864 +0200 CEST