যায়যায়দিন
নারায়ণগঞ্জে হরতালের সমর্থনে মিছিল, লাঠিচার্জ, আহত-২০

নারায়ণগঞ্জে হরতালের সমর্থনে মিছিল, লাঠিচার্জ, আহত-২০

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল প্রত্যাখ্যান সহ বাতিলের দাবিতে বাম গণতান্ত্রিক জোটের অর্ধদিবস হরতাল সমর্থনে মিছিল করতে গিয়ে পুলিশের বাধার মুখে পড়েন নেতাকর্মীরা। এসময় পুলিশের সঙ্গে বাম গণতান্ত্রিক জোটের ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে পুলিশ তাদের উপর লাঠিচার্জ করে। পুলিশের হামলায় প্রায় ২০ জন আহত হয়। বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) সকালে নগরীর বঙ্গবন্ধু সড়কের ডিআইটি এলাকায় হরতাল সমর্থনে মিছিল করতে গিয়ে এ ঘটনা ঘটে। বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতৃবৃন্দ জানান, সকালে হরতাল সমর্থনে মিছিল বের করলে নগরীর বঙ্গবন্ধু সড়কের ২নং গেট থেকে শুরু করে চাষাঢ়া হয়ে ডিআইটি আসলে পুলিশ তাদের মিছিলে বাধা দেয়। এ সময় ব্যানার কেড়ে নেয়ার চেষ্টা করলে নেতাকর্মীরা পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তি করে, পরে পুলিশ লাঠিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে প্রায় ২০ জনেরও বেশী নেতাকর্মী আহত হয়। আহতদের মধ্যে সিপিবির জেলা সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক শিবনাথ চক্রবর্তী, বাসদের জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্টের জেলা কমিটির সহ সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন সোহাগ, বাসদের সাংস্কৃতিক সংগঠন চারণের জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জামাল হোসেন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের জেলা কমিটির আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রাতুল, , রি-রোলিং স্টিল মিলের সংগঠক রেজাউল করিম, ছাত্রফ্রন্টের নেতা জিহাদ হোসেন, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্টের গাবতলী শাখার মো. আলম, সিপিবির নুরুল ইসলা, শরৎ মন্ডল, ছাত্র ফ্রন্টের সদস্য রোকন মিয়ার নাম পাওয়া গেছে৷ নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহাদাত হোসেন জানান, বাম গণতান্ত্রিক জোটের লোকজন রাস্তায় জামেলার সৃষ্টি করার চেষ্টা করছিল। তখন পুলিশ এসে তাদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়। পুলিশ কাউকে লাঠিচার্জ করে নাই। যাযাদি/ এস
Published on: 2023-11-16 07:26:40.316156 +0100 CET