যায়যায়দিন
যানবাহনে আগুন ভাঙচুর ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

যানবাহনে আগুন ভাঙচুর ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

বিএনপির ডাকা টানা তিন দিনের অবরোধ কর্মসূচির দ্বিতীয় দিন বুধবার বেশ কিছু যানবাহনে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে রাজধানীর মিরপুরে কাফরুল থানার গেটে, শ্যামলী, বারিধারা, মুগদা, সাভার, কেরানীগঞ্জ এবং বগুড়া, সিরাজগঞ্জ এবং চট্টগ্রামের আনোয়ারায় বাস, ট্রাক ও অটোরিকশায় আগুন দেওয়া হয়। অন্যদিকে, অবরোধকারীদের সঙ্গে পুলিশের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও ঘটে। পাশাপাশি ট্রেনেও ককটেল নিক্ষেপ ও ভাঙচুর চালানোর খবর আসে। এ ছাড়া সড়ক-মহাসড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখান বিএনপির নেতাকর্মীরা। তবে রাত ৮টায় ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বুধবার সকাল ৬টা থেকে রাত সোয়া ৭টা পর্যন্ত সারা দেশে মোট আটটি আগুনের সংবাদ পেয়েছে তারা। এর মধ্যে ঢাকা সিটিতে দুটি, ঢাকা বিভাগে (গাজীপুর, সাভারদুধুটি, চট্টগ্রাম বিভাগে (সীতাকুণ্ড, কর্ণফুলী) দুটি, রাজশাহী বিভাগ (বগুড়া) একটি, রংপুর বিভাগে (পার্বতীপুর) একটি ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় চারটি বাস, একটি লরি, একটি ট্রাক এবং একটি মোটর সাইকেল পুড়ে যায়। ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মিডিয়া কর্মকর্তা শাহজাহান সিকদার সংবাদমাধ্যমকে জানান, বুধবার সন্ধ্যা ৭টা ৭ মিনিটে বৈশাখী পরিবহণের একটি বাসে আগুন দেওয়ার খবর পায় ফায়ার সার্ভিস। ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। ডিএমপি ট্রাফিক মোহাম্মদপুর জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) ইমরুল সংবাদ মাধ্যমকে জানান, বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে শ্যামলী স্কয়ারের সামনে ওয়েলকাম পরিবহণের একটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। যাত্রী বেশে উঠে আগুন দিয়ে বাসটি থেকে নেমে যায় কয়েকজন দুষ্কৃতকারী। উপস্থিত জনতার সহযোগিতায় দ্রুত আগুন নেভানো সম্ভব হয়। ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের কন্ট্রোল রুমের অপারেটর জয়নাল সংবাদমাধ্যমকে বলেন, বেলা ১১-৫৫ মিনিটের দিকে রাজধানীর মুগদা এলাকায় মিডলাইন পরিবহণের একটি বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখে বাসটি আগুনে পুড়ে অঙ্গার হয়ে গেছে। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি। মিরপুরে কাফরুল থানার গেটের সামনে বাসে আগুন অবরোধের দ্বিতীয় দিনে রাজধানীর মিরপুর কাফরুল থানার গেটের সামনে একটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। বুধবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডিএমপির কাফরুল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ফারুকুল আলম। তিনি জানান, বুধবার বিকাল ৩টার পর তিতাস নামে একটি বাসকে ধাওয়া করে বাসের পেছনের দিকে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে জড়িতদের কাউকে আটক করা যায়নি। বগুড়ায় পুলিশের ধাওয়া, ককটেল বিস্ফোরণ, ট্রাকে আগুন আমাদের স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া জানান, বিএনপি-জামায়াতের ডাকা অবরোধের দ্বিতীয় দিনেও বগুড়ায় সড়কে পিকেটিং ও ভাঙচুর চলেছে। এর মধ্যে সদর উপজেলার বাঘোপাড়া এলাকায় একটি ট্রাকে আগুন ধরিয়ে দেয় অবরোধ সমর্থনকারীরা। বগুড়ায় বিজিবি’র সঙ্গে জামায়াত কর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ২য় বাইপাস সড়কের সাবগ্রাম-ঘুনিয়াতলা এলাকায় সকাল ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। অপরদিকে তিনমাথা রেলগেট এলাকায় সকাল ১০টার দিকে বগুড়া জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আজগর তালুকদার হেনার নেতৃত্বে অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা লাঠিসোটা হাতে নিয়ে শহরের তিনমাথা রেলগেট এলাকায় পৌঁছে এক পথসভায় আন্দোলন বেগবান করার ঘোষণা দেন। এরপর পুলিশ, বিজিবি ও আনসার সদস্যসহ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ৩০ মিনিট মুখোমুখি অবস্থানে থাকার এক পর্যায়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের পিছু হটাতে টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে। এ সময় নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হলেও বিভিন্ন অলিগলিতে অবস্থান নেন। একপর্যায়ে বিএনপি নেতাকর্মীরা বিভিন্ন অলিগলি থেকে ককটেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ পিছু হটে আসে। এরপর থেকে এই এলাকাসহ শহরের বনানী, মাটিডালি, চারমাথা, বেতগাড়ীসহ বিভিন্ন স্থানে বিএনপি নেতাকর্মীরা অবস্থান নিতে থাকে। এছাড়া বাঘোপাড়া পুন্ড্র ইউনিভার্সিটির সামনে একটি ট্রাকে আগুন ধরিয়ে দেন নেতাকর্মীরা। বিএনপির দাবি, সংঘর্ষে বিএনপির ৫ থেকে ৬ জন নেতাকর্মী ছররা গুলিতে আহত হয়েছেন। তাদের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বুধবার ভোর থেকে শহরের তিনমাথা, চারমাথা, সাবগ্রাম-ঘুনিয়াতলা এবং বারোপুর এলাকায় জামায়াত-শিবিরের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী অবস্থান নিয়ে পিকেটিং শুরু করে। সকাল ৯টার দিকে ২য় বাইপাস সড়কের ঘুনিয়াতলায় বিজিবি পাহারায় আটকে থাকা কয়েকটি বাস পারাপারের সময় উত্তেজনা দেখা দেয়। এ সময় বিজিবির সঙ্গে জামায়াত কর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। প্রায় ২০ মিনিট ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার পর জামায়াত কর্মীরা মহাসড়ক থেকে সরে গেলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। জামায়াতে ইসলামী বগুড়া শহর শাখার আমির অধ্যক্ষ আবিদুর রহমান জানান, অবরোধের সমর্থনে জামায়াত নেতাকর্মীরা শহরের ৪টি পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করছে। জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাইদুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা সকাল থেকে শান্তিপূর্ণভাবে তিন মাথা রেলগেট এলাকায় অবস্থান করছিলাম। হঠাৎ পুলিশ কোনো কারণ ছাড়াই আমাদের ওপর গুলি, টিয়ার শেল ছোড়ে। এ সময় আমাদের প্রায় ৫ থেকে ৬ জন নেতাকর্মী রাবার বুলেটে আহত হন।’ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আজগর তালুকদার হেনা বলেন, ‘সকাল থেকেই আমাদের নেতাকর্মীরা মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নিয়েছে। আমরা শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালন করতে চাইলেও পুলিশ এবং আওয়ামী বাহিনী আমাদের ওপর হামলা করে যাচ্ছে।’ কর্মসূচিতে জেলা বিএনপির সভাপতি রেজাউল করিম বাদশা, বর্ষীয়ান নেতা হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, সহিদুন্নবী সালামসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নেন। বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার স্নিগ্ধ আখতার বলেন, ‘রাস্তায় শান্তি-শৃঙ্খলা ফেরাতে পুলিশ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আমরা রাস্তায় অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হতে দিব না।’ কিশোরগঞ্জে সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ-ভাঙচুর জানা গেছে, কিশোরগঞ্জে সকাল থেকেই ঢিলেঢালাভাবে পালিত হয় বিএনপির ডাকা আধাবেলা হরতাল। আমাদের কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, বুধবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে কিশোরগঞ্জ-ভৈরব আঞ্চলিক মহাসড়কের জেলখানা মোড়ের কাছে রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে ব্যারিকেড দেয় বিএনপি নেতাকর্মীরা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই সরে পড়ে তারা। অপরদিকে শহরের গৌরাঙ্গবাজার এলাকায় পিকেটিং করে জেলা ছাত্রদল। এ সময় ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা গৌরাঙ্গবাজার ব্রিজের ওপর টায়ারে আগুন জ্বালায়। ভাঙচুর করা হয় একটি কাভার্ডভ্যান। কিছুক্ষণ পর পুলিশ গিয়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এছাড়া জনজীবনে অবরোধ ও হরতালের তেমন কোনো প্রভাব পড়েনি। তবে অন্যান্য দিনের তুলনায় শহরে লোকজনের উপস্থিতি কম লক্ষ্য করা গেছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শহরের অনেক দোকানপাট খুলেছে। চলেছে ছোট ছোট যানবাহন। তবে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার বিএনপির অবরোধ কর্মসূচি চলার সময় জেলার কুলিয়ারচরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ছয়সূতী ইউনিয়ন কৃষক দলের সভাপতি বিল্লাল মিয়া (৩০) ও উপজেলা ছাত্রদল নেতা শেফায়েত উল্লাহ (২০) নিহত হন। এ ঘটনার প্রতিবাদে অবরোধের মধ্যেই বুধবার সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত আধাবেলা হরতালের ডাক দেয় কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপি। ঈশ্বরদীতে মৈত্রী এক্সপ্রেসে হামলা, জানালা ভাঙচুর আমাদের পাবনা প্রতিনিধি জানান, চলমান অবরোধ কেন্দ্র করে পাবনার ঈশ্বরদীতে কোলকাতা-ঢাকা রুটের আন্তর্জাতিক মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনে হামলা করে দুর্বৃত্তরা। এ সময় জানালার গ্লাস ভেঙে যায়। বুধবার দুপুরে ১২টার দিকে ঈশ্বরদীর লোকোশেড এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। ট্রেন চলে যাওয়ার পর ঘটনাস্থল থেকে একটি ককটেল ও পেট্রোল বোমার বোতল জব্দ করেছে পুলিশ। ঈশ্বরদীর লোকোশেড রেলগেটের গেটম্যান শরিফুল ইসলাম বলেন, ‘১৫ থেকে ১৬ জনের একদল যুবক লোকোমোটিভ শেডের সামনে মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনে পেট্রোল, পাথর ও ইট ছুড়ে মারে। এ সময় দ্রুত ট্রেনটি ঢাকার দিয়ে চলে যায়।’ পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের প্রকৌশলী বীরবল মন্ডল বলেন, ‘মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেন দুপুর ১২টার দিকে ঈশ্বরদী জংশন স্টেশনের অদূরে লোকোশেড অতিক্রম করে। এ সময় ট্রেনের ৭২১৯ কোচে ঢিল ছুড়ে দুর্বৃত্তরা। এতে জানালার দু’টি গ্লাস ভেঙে গেছে।’ চট্টগ্রামে ককটেল ফাটিয়ে গাড়ি ভাঙচুর, বাসে আগুন আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি জানান, চট্টগ্রামে ঝটিকা মিছিল থেকে ককটেল ফাটিয়ে গাড়ি ভাঙচুরের পর এক ছাত্রদল কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার দুপুরে নগরীর কোতোয়ালি কদমতলী সংলগ্ন আটমাসিং মোড় থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার তৌহিদুল ইসলাম (২৮) কোতোয়ালি থানা ছাত্রদলের সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ। নগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (কোতোয়ালি জোন) অতনু চক্রবর্তী জানান, দুপুর ১টার দিকে আটমাসিং মোড়ে ১০/১২ জন যুবক ঝটিকা মিছিল বের করে একটি মিনিবাস ভাঙচুর করে। তারা সেখানে দু’টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়। এ সময় পুলিশ ধাওয়া করে তৌহিদুলকে আটক করতে পারলেও অন্যরা পালিয়ে যায়। পরে আশপাশে তল্লাশি চালিয়ে একটি ককটেল ও দু’টি পেট্রোল বোমা উদ্ধার করা হয়। বুধবার অবরোধের দ্বিতীয় দিন চট্টগ্রামের অভ্যন্তরীণ রুটে যাত্রী ও বাস চলাচল বেড়েছে। তবে যাত্রীর সংখ্যা ছিল তুলনামূলক কম। সকালে কর্ণফুলী থানার ভেল্লাপাড়া ব্রিজ এলাকায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে একটি বাসে আগুন দেওয়া হয়। ওই বাসে পোশাক শ্রমিকদের কর্মস্থলে নেওয়া হচ্ছিল। এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি। বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শিরিনসহ বরিশালে ১৫ জন গ্রেপ্তার বরিশাল অফিস জানায়, বরিশালে পিকেটিংয়ের চেষ্টার সময় বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাসহ ১৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার সকাল ৭টার দিকে নগরীর সিঅ্যান্ডবি সড়কে পিকেটিংয়ের চেষ্টা করলে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনোয়ার হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘বুধবার সকালে ঢাকা-কুয়াকাটা মহাসড়কের বরিশাল নগরীর সিঅ্যান্ডবি রোডে যান চলাচলে বাধা দেয় পিকেটাররা। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস আক্তার জাহান শিরিন, দক্ষিণ জেলা আহ্বায়ক আবুল হোসেন, মহানগর আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান ফারুক, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আলী হায়দার বাবুলসহ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’ দক্ষিণ জেলা বিএনপি সদস্য মুসফিকুল হাসান মাসুম বলেন, ‘অবরোধ সফল করতে দক্ষিণ জেলা বিএনপি ও মহানগর বিএনপি সিঅ্যান্ডবি সড়কে অবস্থান নেয়। একপর্যায়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সিঅ্যান্ডবি ১নং পুল থেকে তাদের ঘিরে ফেলে। সেখান থেকে আটক করা হয়েছে বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস জাহান শিরিন, দক্ষিণ জেলার আহ্বায়ক আবুল হোসেন, যুবদল নেতা রেজাউর রহমান কিরন ও সাকলাইন মোস্তাককে।’ মহানগর বিএনপির দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত জাহিদুর রহমান রিপন জানান, মহানগর বিএনপি সিঅ্যান্ডবি রোডের তাওয়া রেস্তোরাঁর সামনে থেকে মিছিল বের করার চেষ্টা করে। সেখান থেকে মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান ফারুক, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আলী হায়দার বাবুল, ১৬নং ওয়ার্ড বিএনপি নেতা শেখ সাব্বির, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক হোসেন আনিচ, মৎস্যজীবী দলের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. ফেরদৌস, ১নং ওয়ার্ড বিএনপির সদস্য সামশুল আলম মন্টু, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা ইকু, শ্রমিকদল নেতা মো. আসলাম, অ্যাঞ্জেলসহ কমপক্ষে ১১ জনকে আটক করা হয়েছে। এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানান তিনি। সিরাজগঞ্জে গম বোঝাই ট্রাকে আগুন সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে গম বোঝাই ট্রাকে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে রায়গঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের ষোল মাইল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। রায়গঞ্জ ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের স্টেশন অফিসার আশিকুর রহমান বলেন, ‘ঢাকা থেকে গম বোঝাই একটি ট্রাক নওগাঁর দিকে যাচ্ছিল। ট্রাকটি সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার ষোল মাইল এলাকায় পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা তাতে আগুন দেয়। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।’ নরসিংদীতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক নরসিংদী প্রতিনিধি জানান, অবরোধ কর্মসূচির কারণে বুধবার নরসিংদী জেলায় তেমন কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। কড়া পুলিশি পাহারায় পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক ছিল। তবে মহাসড়কে জেলার অভ্যন্তরীণ যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও আন্তঃজেলার বা দূরপাল্লার যানবাহন খুব একটা চোখে পড়েনি। এছাড়া পিকেটিং করতেও রাস্তায় বিএনপি বা জামায়াতের কোনো নেতাকর্মীদের দেখা যায়নি। পরিস্থিতি অনেকটাই শান্ত এবং স্বাভাবিক ছিল। ফরিদপুরে গুলিতে আহত জেলা বিএনপির সদস্য সচিব ফরিদপুর প্রতিনিধি জানান, অবরোধের সমর্থনে বের করা বিক্ষোভ মিছিলে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় শর্টগানের ছোড়া গুলিতে আহত হয়েছেন ফরিদপুর জেলা বিএনপির সদস্য সচিব এ কে কিবরিয়া স্বপন। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের কোমরপুর বাহিরদিয়া ব্রিজের কাছে এ ঘটনা। গুলিতে আহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট মোদাররেস আলী ইছা। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মহাসড়কে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিশেষ টহল স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জানান, কুমিল্লা-সিলেট ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে চলাচলরত যানবাহনের নিরাপত্তা এবং চালকদের মনোবল বৃদ্ধির জন্য বুধবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কুমিল্লা-সিলেট ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বিশেষ টহল দিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহগীর আলমের নেতৃত্বে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুপুর পৌনে ২টা পর্যন্ত এই দুই মহাসড়কে টহল দেওয়া হয়। হবিগঞ্জে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ, মাঠে আ’লীগ হবিগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেছেন হবিগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার আউশকান্দি সৈয়দপুর এলাকায় এ বিক্ষোভ করেন তারা। বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ নেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক সৈয়দ মুশফিক আহমেদের নেতৃত্বে বেশ কিছু নেতাকর্মী। স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক সৈয়দ মুশফিক আহমেদ জানান, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেছেন তারা। এদিকে, হবিগঞ্জ শহরে জেলা যুবলীগের উদ্যোগে এক বিশাল তারুণ্যের জয়যাত্রা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুপুরে শহরের শায়েস্তানগর ট্রাফিক পয়েন্ট থেকে শুরু করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে হাজারো নেতাকর্মীর এই তারুণ্যের সমাবেশ। পরে শহরের টাউন হল রোডের সামনে গিয়ে এক সংক্ষিপ্ত পথসভা করেন নেতারা। ফেনীতে মহাসড়কে অবরোধ ফেনী প্রতিনিধি জানান, ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কে অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফেনী পৌর বিএনপির আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন বাবুল, সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট মেজবাহ উদ্দিন ভূঁইয়া, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দোলন, জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক কাজী নজরুল ইসলাম দুলালসহ অনেকে। কুষ্টিয়ায় মাঠে ছিল না বিএনপি কুষ্টিয়া প্রতিনিধি জানান, ভোর ৬টা থেকে বিএনপির অবরোধ কর্মসূচি শুরু হয়। এদিন কুষ্টিয়া জেলা থেকে ঢাকা-খুলনাসহ সব রুটে যাত্রী ও মালবাহী পরিবহণ বন্ধ ছিল। অন্যদিকে অভ্যন্তরীণ রুটেও চলাচল করেনি পরিবহণগুলো। ফলে চরম বিপাকে পড়েন সাধারণ যাত্রীরা। অধিক ভাড়া দিয়ে সিএনজি বা ছোটখাটো যানবাহনে উপজেলা শহরগুলোতে যাতায়াত করতে দেখা গেছে তাদের। এদিকে অবরোধ সফল করতে বিএনপির কোনো নেতাকর্মীকে মাঠে দেখা যায়নি। অন্যদিকে অবরোধে যে কোনো ধরনের নাশকতা এড়াতে শহরে পুলিশ মোতায়েনসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কড়া পাহারা লক্ষ্য করা গেছে। মৌলভীবাজারে বিএনপির পৃথক মিছিল-সমাবেশ স্টাফ রিপোর্টার, মৌলভীবাজার জানান, দ্বিতীয় দিনে মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির দুই গ্রুপ আলাদা অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে। বুধবার সকাল ৯টা থেকে জেলা বিএনপির (নাসের রহমান গ্রুপ) নেতারা শহরের মৌলভীবাজার-সিলেট সড়কে জেলা যুবদলের হরতালের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে অবরোধ ও হরতাল কর্মসূচি পালন করেন। এতে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও মৌলভীবাজার পৌরসভার সাবেক মেয়র ফয়জুল করীম ময়ুন, সহসভাপতি আশিক মোশাররফ, সহসভাপতি ও সদর উপজেলা শাখার সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন মাতুক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক বকশি মিছবাহ হুর রহমানসহ অনেকে। এদিকে জেলা বিএনপি (মিজান গ্রুপ) মৌলভীবাজার শহরের চাঁদনীঘাট এলাকায় সড়ক অবরোধসহ বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এতে নেত্বত্ব দেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, স্বাগত কিশোর দাশ চৌধুরী, বিএনপি নেতা মনোয়ার আহমদ রহমানসহ অনেকে। মহাসড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ বিএনপির, রেলপথ অবরোধ জামায়াতের! শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি জানান, বিএনপি-জামায়াতের ডাকা অবরোধ কর্মসূচির দ্বিতীয় দিনে গাজীপুরের শ্রীপুরের ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে ও বাঁশের লাঠি হাতে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এতে কিছু সময়ের জন্য ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। এছাড়াও অবরোধের সমর্থনে জয়দেবপুর ময়মনসিংহ রেল সড়কের উপজেলার বরমী ইউনিয়নের মাইঝপাড়া এলাকায় রেললাইন অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে জামায়াতে ইসলামী। রূপগঞ্জে সড়কে অগ্নিসংযোগ গাড়ি ভাঙচুর করে বিএনপির অবরোধ রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, অবরোধের দ্বিতীয় দিনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সড়ক অগ্নিসংযোগ ও গাড়ি ভাঙচুর করেছে বিএনপি সমর্থকরা। বুধবার সকালে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের উপশহরে অগ্নিসংযোগ করে সড়ক অবরোধ করে। এদিকে উপজেলার গোলাকান্দাইল ইউনিয়নের আধুরিয়া এলাকায় (ঢাকা সিলেট) মহাসড়কে বিএনপি সমর্থকদের সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের একটি কাভার্ডভ্যান ভাঙচুর করতে দেখা যায়। পরে রূপগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। কেরানীগঞ্জে বাসের পর এবার অটোরিকশায় আগুন কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি জানান, ঢাকার কেরানীগঞ্জে বাসে অগ্নিসংযোগের পর সিএনজিচালিত অটোরিকশায় আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। বুধবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার পানগাঁও রেললাইনের ১৩৫ নম্বর পিলার সংলগ্ন পাকা রাস্তা এলাকায় একটি অটোরিকশায় আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহজামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বুধবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার রোহিতপুর ইউনিয়নের পোড়াহাটি এলাকায় গুলিস্তান-নবাবগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা বিএনপি। বিক্ষোভ মিছিলে নেতৃত্ব দেন কেরানীগঞ্জ মডেল থানা বিএনপির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ত্রিবুদ্দিন রোমান, কোষাধ্যক্ষ আবুল হাসনাত, কেরানীগঞ্জ মডেল স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মোস্তফা কামাল মন্টু, ঢাকা জেলা মহিলা দলের সদস্য সাবেরা বেগম। এ সময় তারা অবরোধের পক্ষে এবং সরকারবিরোধী বিভিন্ন সেøাগান দেন। পরে একটি পণ্যবাহী ট্রাক (যার নম্বর ঢাকা মেট্রো-চ ১২-২০০০) ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। কেন্দুয়ায় বিএনপির সড়ক অবরোধ, পিকেটিং স্টাফ রিপোর্টার, নেত্রকোনা থেকে জানান, নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার রামপুর বাজারে বুধবার সকালে জেলা বিএনপির সাবেক উপদেষ্টা কেন্দ্রীয় জিয়া পরিষদের সহকারী মহাসচিব রোটারিয়ান এম. নাজমুল হাসানের নেতৃত্বে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা অবরোধের সমর্থনে মিছিল ও পিকেটিং করেছে। অবরোধ সমর্থনে জাবির ফটকে ছাত্রদলের তালা জাবি প্রতিনিধি জানান, জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয়ের প্রধান ফটকসহ ছয়টি ফটকে তালা ঝুলিয়েছে শাখা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। বুধবার সকাল সাড়ে ৭টায় বিশ^বিদ্যালয়ের প্রধান ফটক, জয়বাংলা গেট, মীর মশাররফ হোসেন হল সংলগ্ন গেট, বিশমাইল গেট, ইসলামনগর গেট ও আমবাগান সংলগ্ন গেটে শিকলসহ তালা ঝুলিয়ে দেন তারা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইকবাল হোসেন, জোবায়ের আল মাহমুদ, নাইমুল হাসান কৌশিক, রেজাউল আমিন, সাহানুর রহমান, এম আর মুরাদ, রাজন মিয়া, নিশাত আব্দুল্লাহ, মুত্তাশিন ফুয়াদ, রাজু, আলামিন প্রমুখ। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন গেটে তালা লাগিয়ে দেওয়ার বিষয়টি জানতে পেরে প্রধান ফটকে উপস্থিত হন সহকারী প্রক্টর মওদুদ আহমেদ। তিনি এ সময় নিরাপত্তা প্রহরীদের তালা ভেঙে ফেলতে নির্দেশ দেন। সকাল ৮টার দিকে তালা খুলে দিলে আবার যানবাহন চলাচল ও স্বাভাবিক কার্যক্রম শুরু হয়। এছাড়া আধঘণ্টা পর জয়বাংলা গেট ও মীর মশাররফ হোসেন হল ও আমবাগান গেটের তালাও একই সময় ভেঙে ফেলা হয় বলে জানান দায়িত্বরত নিরাপত্তা প্রহরীরা। যাযাদি/ এস
Published on: 2023-11-02 04:33:22.507288 +0100 CET