যায়যায়দিন
নির্বাচনে কে আসলো কে আসলো না তা বিষয় নয় : আনিসুর রহমান

নির্বাচনে কে আসলো কে আসলো না তা বিষয় নয় : আনিসুর রহমান

ঢাকা জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসার মো. আনিসুর রহমান বলেছেন, অনেকে ক্ষমতা কথা বলেন, আমি এবার ক্ষমতা প্রয়োগ দেখতে চাই। এবং এই নির্বাচনে ভোট কীভাবে শান্তিপূর্ণ হবে সেটা আমি জানি না, তবে ভোটকে সুষ্ঠু করার দায়িত্ব পুলিশ এবং প্রশাসনের। শুক্রবার (২২ ডিসেম্বর) দুপুরে ঢাকার কেরানীগঞ্জে অনুষ্ঠিত প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন জেলা প্রশাসক। জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমান বলেন, কে কোন দলের বা কোন প্রতীকে নির্বাচনে অংশ নিলো তা দেখার বিষয় নয়, জনগণের কাছে সুষ্ঠু ভোট দৃশ্যমান হলেই নির্বাচন সফল হবে। প্রিজাইডিং অফিসারদের উদ্দেশ্যে করে তিনি বলেন, আপনারা সরকারে প্রতিনিধিত্ব করছেন। নির্বাচন আয়োজন খুবই কঠিন কমযজ্ঞ। আমাদের নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে। নির্বাচনটা গ্রহণযোগ্য হতে হবে। আমার অনুরোধ থাকবে নির্বাচন যাতে সুষ্ঠু এবং ফ্রি ফেয়ার, পিসফুল ও দৃশ্যমান হয়। তিনি আরও বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে প্রয়োজন হলে রাজনৈতিক দলে প্রভাবশালী ব্যক্তি ও এমপি-মন্ত্রীদের ক্ষেত্রেও কঠোর হবেন। পেশিশক্তি ব্যবহারকারীদের ক্ষেত্রেও সচেতন অবস্থানে থাকতে হবে পুলিশ ও প্রশাসনকে। নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্ঘনকারীদের ছাড় দেওয়া হবে না। কেন্দ্রে কেউ ভোট কোন রকম বিশৃঙ্খলা করতে এলে পুলিশ বসে থাকবে না, প্রয়োজনে গুলি করতে বাধ্য হবে। নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের সদিচ্ছা থাকলে কোনও ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটবে না। নির্বাচনে বিপুল সংখ্যক বিজিবি, র‌্যাব, পুলিশ ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোতায়েন করা হবে। সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে নির্বাচন করার লক্ষ্যে তারা একসঙ্গে কাজ করবে। সেই লক্ষ্যে ভোটকেন্দ্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও প্রিজাইডিং-পোলিং অফিসারের মধ্যে সমন্বয় বজায় রাখতে হবে। আনিসুর রহমান বলেন, জনগণ যদি আসে তাহলে নির্বাচনের সফলতা হবে, তাই কে আসলো কে আসলো না তা বিষয় নয়। আগামী নির্বাচনে রাষ্ট্রের কর্মচারী হিসেবে নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন করবেন। আইনশৃঙ্খলার ব্যত্যয় হবে না বলে আশা করি। দলীয় চিন্তাভাবনার ঊর্ধ্বে উঠে আপনারা কাজ করবেন। এসময় দলীয় চিন্তাভাবনার ঊর্ধ্বে উঠে, সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নিরপেক্ষ ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানাপুলিশকে আহবান জানান তিনি। কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ ফয়সল বিন করিমের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন- ঢাকা জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার জাহাঙ্গীর হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) আমিনুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (উন্নয়ন ও মানব সম্পদ) ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মুনিবুর রহমান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সালাউদ্দিন আইয়ুবী, মনিজা খাতুন, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহবুব আলম, কেরানীগঞ্জ মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তফা কামাল প্রমুখ। উল্লেখ, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-২ ও ৩ আসনের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ২৬০ জন, সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ১৩১৮ জন ও পোলিং কর্মকর্তা ২৬৩৮ জন এই কর্মশালায় অংশ নিয়েছেন। বৃহস্পতিবার(২১ ডিসেম্বর) ও শুক্রবার এই দু'দিনের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মশালার সমাপ্তি ঘটে। যাযাদি/ এস
Published on: 2023-12-22 09:45:08.059709 +0100 CET