যায়যায়দিন
মার্চ পর্যন্ত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করলো ভারত

মার্চ পর্যন্ত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করলো ভারত

নিজেদের দেশে পেঁয়াজের সরবরাহ ও দাম স্বাভাবিক রাখতে পণ্যটির রপ্তানির ওপর ন্যূনতম মূল্যের বিধিনিষেধের সময়সীমা ২০২৪ সালের মার্চ পর্যন্ত বাড়িয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস। ভারতের ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফরেন ট্রেড বা বৈদেশিক বাণিজ্যবিষয়ক মহাপরিচালকের কার্যালয় বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, আগামী বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত প্রতি টন পেঁয়াজের ন্যূনতম রপ্তানিমূল্য ৮০০ ডলারের সিদ্ধান্তটি বলবৎ থাকবে। ভারতে পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় গত ২৯ অক্টোবর প্রতি টন পেঁয়াজের রপ্তানিমূল্য ৮০০ ডলার নির্ধারণ করা হয়। প্রথমে চলতি বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ বিধিনিষেধ দেওয়া হয়। গতকাল সেটি আবার তিন মাস বাড়ানো হয়। এ-সংক্রান্ত আগের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, বিশ্বের যেকোনো দেশেই যেকোনো পরিমাণে পেঁয়াজ রপ্তানি করা যাবে। এ বিষয়ে বাধা নেই। তবে রপ্তানির ক্ষেত্রে প্রতি টন পেঁয়াজে ন্যূনতম ৮০০ ডলার নিতে হবে, এর নিচে নয়। জাহাজে পরিবহন ও বিমার খরচ এ দামের অন্তর্ভুক্ত নয়। জানা গেছে, গত আগস্টে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার পেঁয়াজ রপ্তানিতে ৪০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করেছিল। তখন এ নিয়ে ব্যবসায়ীদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দেয়, এমনকি তাঁরা ধর্মঘটও করেন। এর মধ্যেই ন্যূনতম রপ্তানিমূল্য বেঁধে দেওয়া হয়েছিল। নতুন করে ন্যূনতম রপ্তানিমূল্যের বিধিনিষেধের সময়সীমা বাড়ানোর বিষয়ে ভারতের দ্য ইকোনমিক টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশে পেঁয়াজের পর্যাপ্ত সরবরাহ ও মূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সরকারি তথ্যানুযায়ী, গত ২৯ নভেম্বর ভারতে পেঁয়াজের খুচরা বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ছিল ৫৮ দশমিক ৮৫ রুপি। এক বছর আগে দাম ছিল ২৯ দশমিক ৭৬ রুপি। তার মানে এক বছরের ব্যবধানে দেশটিতে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ৯৪ দশমিক ৩৯ শতাংশ। যাযাদি/ এসএম
Published on: 2023-12-08 11:59:16.093085 +0100 CET