যায়যায়দিন
হলে দর্শক পাচ্ছে না হিন্দি সিনেমা

হলে দর্শক পাচ্ছে না হিন্দি সিনেমা

বাংলাদেশের দর্শকের মাঝে হিন্দিপ্রীতি থাকলেও সিনেমা হলে গিয়ে প্রিয় তারকা সালমান-শাহরুখদের দেখার আগ্রহ কমই দেখা যায়। একবার নয় বার বার এর প্রমাণ পাওয়া গেছে। দেশের প্রেক্ষাগৃহ বাড়াতে এবং দর্শককে হলমুখী করতে দীর্ঘদিন ধরে হিন্দি তথা উপমহাদেশের সিনেমা প্রদর্শনের জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছিলেন প্রদর্শক সমিতির নেতা-কর্মীর। শত বাধা-বিপত্তি আর দেশীয় চলচ্চিত্র পরিবারের আন্দোলনকে উপেক্ষা করে হিন্দি সিনেমা আনলেও এখনো বাজার সৃষ্টি করতে পারেননি তারা। দীর্ঘদিন পর আরেকবার এর প্রমাণ মিলল। চলতি বছরের ১২ মে বলিউড বাদশা এবং কিং খানখ্যাত শাহরুখ খান অভিনীত বক্স অফিস কাঁপানো ‘পাঠান’ সিনেমার মাধ্যমে নতুন করে বংলাদেশে হিন্দি সিনেমা প্রদর্শন শুরু হয়। তবে ছবিটি যেভাবে ভারতের দর্শকের মধ্যে ঝড় তুলেছিল, তার ছিটেফোঁটাও দেখা মেলেনি বাংলাদেশে। এরপর চলতি সপ্তাহ (২৫ আগস্ট) থেকে দেশের ৩২টি সিনেমা হলে একযোগে প্রদর্শিত হয় বলিউডের ভাইজান/ টাইগারখ্যাত আরেক সুপারস্টার সালমান খানের ‘কিসি কা ভাই কিসি কি জান’ সিনেমাটি। এমনিতেই সিনেমাটি ভারতের বক্স অফিসেও ব্যর্থ হয়েছে, তারপরও মুক্তির ১২৬ দিন পর অনেকটা আশা নিয়ে বাংলাদেশে আনা হলে শুরুতেই সেই আশায় গুড়েবালি। বলিউডভিত্তিক প্রভাবশালী নিউজ পোর্টাল বলিউড হাঙ্গামা এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, বাংলাদেশের স্ক্রিন থেকে মুক্তির প্রথম দিনে মাত্র দুই লাখ টাকার টিকিট বিক্রি হয়েছে প্রায় ২২৫ কোটি রুপিতে নির্মিত ‘কিসি কা ভাই কিসি কি জান’ সিনেমাটি। ভারত থেকে এটি মোটে ১১০ কোটি ৫৩ লাখ রুপি কালেকশন করতে পেরেছিল। বিশ্বব্যাপী কালেকশনের পরিমাণ ১৮২ কোটি রুপি। বক্স অফিস থেকে বাজেটের টাকাও তুলতে পারেনি সিনেমাটি। ফরহাদ সামজি পরিচালিত ‘কিসি কা ভাই কিসি কি জান’-এ সালমান খানের নায়িকা পূজা হেগড়ে। এছাড়াও আছেন ভেঙ্কটেশ, ভূমিকা চাওলা, জগপতি বাবু, রাঘব জুয়াল, জেসি গিল, শেহনাজ গিল, পলক তিওয়ারি সতীশ কৌশিক প্রমুখ। রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সের পাঁচটি শাখায় প্রতিদিন ১৮টি শো প্রদর্শিত হচ্ছে সিনেমাটির। প্রতিষ্ঠানটির জ্যেষ্ঠ বিপণন কর্মকর্তা মেসবাহউদ্দিন আহমেদ জানান, ‘এটা একেবারেই চলছে না। অবশ্য সিনেমা থেকে আমরা খুব একটা প্রত্যাশাও করিনি। এক দিকে পুরনো সিনেমা, ওটিটিতেও চলে এসেছে অনেক আগে। আর ভারতেও তো চলেনি সিনেমাটি। সুতরাং এখানে চার-পাঁচশ টাকা খরচ করে কে দেখবে এই সিনেমা!’ খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঢাকার লায়ন সিনেমাস, ব্লকবাস্টার সিনেমাস, চট্টগ্রামের সিলভার স্ক্রিনসহ অন্যান্য হলগুলোর অবস্থাও একই। এ বিষয়ে প্রদর্শক সমিতির নেতারা জানান, ‘সালমানের এই সিনেমা তারকাবিহীন বাংলাদেশের যে কোনো ছবির চেয়েও খারাপ যাচ্ছে।’ যদিও বাংলাদেশে বলিউডের এই দুই খানের বিশাল এক ভক্ত রয়েছে, তবে ইন্টারনেটের কল্যাণে এই ছবি দুটি অনেকে মুঠোফোনে দেখে ফেলায় এই ভরাডুবির মূল কারণ বলে দাবি করছেন হলমালিকরা। তাদের ধারণা, যদি ভারতের সঙ্গে একই সময়ে বাংলাদেশেও কোনো হিন্দি সিনেমা মুক্তি পায়, তাহলে এই চিত্র পুরোপুরি বদলে যাবে। সে লক্ষ্যেই আগামী সপ্তাহে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহগুলোতেও মুক্তি পাচ্ছে শাহরুখ খানের বহুল প্রতীক্ষিত নতুন সিনেমা ‘জওয়ান’। এরই মধ্যে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনও মিলেছে। সিনেমাটি আমদানি করছে পাঠানের আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান অ্যাকশন-কাট এন্টারটেইনমেন্ট। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার অনন্য মামুনও খবরটি নিশ্চিত করে বলেন, জওয়ান মুক্তি পাচ্ছে ৭ সেপ্টেম্বর। আর বাংলাদেশে প্রদর্শিত হবে পরের দিন ৮ সেপ্টেম্বর থেকে। কারণ বাংলাদেশে শুক্রবারেই নতুন ছবি মুক্তি পায়। আর ক্যালেন্ডার হিসেবে শুক্রবার পড়ে ৮ তারিখ। গত আগস্টে ভারতের সেন্সর বোর্ড থেকে ছাড়পত্র পেয়েছে ‘জাওয়ান’। ছবিটির দৈর্ঘ্য ২ ঘণ্টা ৪৯ মিনিট। প্রায় ৩০০ কোটি রুপি বাজেটের ‘জাওয়ান’ পরিচালনা করেছেন তামিল নির্মাতা অ্যাটলি কুমার। এই প্রথম দক্ষিণী নির্মাতার পরিচালনায় কাজ করলেন কিং খান। হিন্দি, তামিল ও তেলেগু ভাষায় মুক্তি পাবে এটি। এরই মধ্যে ছবির দুটি গান, ‘জিন্দা বন্দা’ ও ‘চলেয়া’ বিপুল জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। ‘চলেয়া’ গানে চেনা রোমান্টিক আবহে দেখা গেল শাহরুখকে। সেই সঙ্গে প্রথমবার তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন দক্ষিণের সুপারস্টার নয়নতারা। আরও অভিনয় করেছেন বিজয় সেথুপতি, সানিয়া মালহোত্রা, প্রিয়ামনি প্রমুখ। দীপিকা পাড়ুকোন ও থালাপতি বিজয়কে দেখা যাবে অতিথি চরিত্রে। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন অনুসারে যুক্তরাষ্ট্র, আরব আমিরাত, অস্ট্রেলিয়াসহ বেশ কয়েকটি দেশে সিনেমার অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। খবর মিলেছে, সেসব দেশে রেকর্ড পরিমাণ টিকিট বিক্রি হচ্ছে। ভারতে আরও কয়েক দিন পর শুরু হবে এই প্রক্রিয়া। তবে বাংলাদেশে এখনও অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়নি। এই সিনেমার মাধ্যমেই প্রমাণ হবে দেশের মাটিতে হিন্দি সিনেমা কেমন চলবে। তবে ভারতের সঙ্গে একযোগে বাংলাদেশেও জওয়ান ছবির মুক্তির খবরে বাংলাদেশের শাহরুখ ভক্তদের মধ্যে তুমুল উত্তেজনা বিরাজ করছে। অনেকে সিনেমাটি প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে দেখার জন্য অধীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করছেন। প্রায় পাঁচ দশকেরও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশে ভারতীয় সিনেমা প্রদর্শনের ওপর নিষেধাজ্ঞা ছিল। ২০১৫ সালে সাময়িকভাবে এ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়। এরপর সাফটা চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশে প্রথম বলিউড সিনেমা হিসেবে মুক্তি পেয়েছিল সালমান খান অভিনিত ‘ওয়ান্টেড’। সেই সিনেমাও দর্শক টানতে ব্যর্থ হয়। এর কিছুদিনের মধ্যেই বাংলাদেশের চলচ্চিত্র অঙ্গনে হিন্দি সিনেমা প্রদর্শনের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন সৃষ্টি হয় চলচ্চিত্র পরিবারে। শাকিব খান মূলত এ আন্দোলনের নেতৃত্ব দেন। ওই সময় আমির খানের ‘থ্রি ইডিয়টস’ এবং শাহরুখ খান অভিনীত ‘মাই নেইম ইজ খান’ বাংলাদেশে মুক্তি পেয়েছিল। তবে বাংলাদেশের বিনোদন জগতের একটা বিশাল অংশের বাধার মুখে বলিউড সিনেমার ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনরায় বহাল করা হয়। দীর্ঘ ১৩ বছর পর গত মে মাসে হিন্দি ছবির দরজা খুলে দিয়েছে সরকার। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, বছরে ১০টি হিন্দি ছবি আমদানি করে মুক্তি দেওয়া যাবে। যাযাদি/ এস
Published on: 2023-08-31 07:33:06.626703 +0200 CEST