যায়যায়দিন
সিপিজিসিবিএল কর্তৃক চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষকে মাতারবাড়ী চ্যানেল হস্তান্তর

সিপিজিসিবিএল কর্তৃক চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষকে মাতারবাড়ী চ্যানেল হস্তান্তর

মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ীতে গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণ বাস্তবায়নকল্পে মাতারবাড়ী কোল পাওয়ার জেনারেশনের কোম্পানী (CPGCBL) এর নির্মানাধীন ৮০মিটার গভীর মাতারবাড়ী সমুদ্র চ্যানেল চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষকে হস্তান্তর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয় ৷ বৃহস্পতিবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০ ঘটিকায় মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পের সিপিজিসিবিএল কনফারেন্স রুমে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষকে মাতারবাড়ী চ্যানেল হস্থান্তর করেন ৷ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মূখ্য সচিব মো: তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, বিশেষ অতিথি জালানী মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ হাবিবুর রহমান, নৌপরিবহন মন্ত্রাণালয়ের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল, সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষকের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ সোহায়েল, সাথে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক ও অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ ৷ মূখ্য সচিব তোফাজ্জল হোসেন মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প, এসপিএম প্রকল্প, মাতারবাড়ী সমুদ্রবন্দর পরিদর্শন করে বিকালে কক্সবাজার হিল্টন সার্কিট হাউজ রাত্রিযাপন শেষে আগামীকাল কক্সবাজার বিমান বন্দরের উন্নয়নকাজ পরিদর্শন করে বিমানযোগে ঢাকায় ফিরবেন ৷ উল্লেখ্য, এ বন্দর দিয়ে এ পর্যন্ত এসেছে ১১৬টি জাহাজ। চট্টগ্রাম বন্দরের জেটিতে সর্বোচ্চ ১০ মিটার ড্রাফট ও ২০০ মিটার দীর্ঘ জাহাজ ভেড়ার সুযোগ আছে। যা মাতারবাড়ী চ্যানেলে ৩৫০ মিটার প্রশস্ত ও ১৬ মিটার গভীরতা সম্পন্ন ১৪ দশমিক ৩০ কিলোমিটার দীর্ঘ এপ্রোচ চ্যানেল নির্মাণ করা হয়েছে। দেশের প্রথম এবং একমাত্র গভীর সমুদ্র বন্দর স্থাপনের জন্য ১৭ হাজার ৭শ ৭৭ কোটি ২০ লাখ টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্র বন্দর উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়াও এপ্রোচ চ্যানেলের উত্তর পার্শ্বে ২ হাজার ১৫০ মিটার দীর্ঘ ও দক্ষিণ পার্শ্বে ৬৭০ মিটার দীর্ঘ ব্রেক ওয়াটার (ঢেউ নিরোধক বাঁধ) নির্মাণ করা হয়েছে। যাযাদি/ এস
Published on: 2023-09-21 09:50:50.742921 +0200 CEST