যায়যায়দিন
ন্যায্য দামে এলপিজি ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে: জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী

ন্যায্য দামে এলপিজি ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে: জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী

তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাস বা এলপিজি নীতিমালার আধুনিকায়ন প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। তিনি বলেন, ব্যবহার আগের তুলনায় বহুগুণ বেড়েছে। ফলে এলপিজির জন্য যুগোপোযোগী নীতিমালা প্রয়োজন হয়ে পড়েছে। একসময় আমরা যে নীতিমালা করেছিলাম এখন সেটি আরো আধুনিক করে যুগোপোযোগী নীতিমালা তৈরি করা দরকার। আজ রোববার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর টিসিবি ভবনে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন আয়োজিত এক সেমিনারে এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। নসরুল হামিদ বলেন, ২০০৯ সালে দেশে বার্ষিক এলপিজির ব্যবহার ছিল মাত্র ৪৭ হাজার টন। বর্তমানে ব্যবহার হচ্ছে সাড়ে ১৪ লাখ টন। আগের চেয়ে চাহিদা বহুগুণ বেড়েছে। ‘হোটেল রেস্তোরাঁয় এলপিজি সিলিন্ডারের নিরাপদ ব্যবহার’ শীর্ষক এ সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বিইআরসির চেয়ারম্যান মো. নুরুল আমিন। প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, যেখানেই খোঁজ নিচ্ছি এলপি গ্যাসের দাম ১০০-২০০ টাকা বেশি পাচ্ছি। যেকোনো মূল্যে ন্যায্য দামে এলপিজি ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। ডিলারশিপ নিয়োগের ক্ষেত্রে এলপিজি অপারেটরদের নজরদারি থাকা দরকার। ডিলারের উপ-ডিলার, তারপর খুচরা বিক্রেতা এভাবে কয়েক হাত ঘুরে দাম বেড়ে যাচ্ছে। বিইআরসি নজরদারি করছে, অপরেটরদেরকও দায়িত্ব নিতে হবে। দরকার পড়লে, লাইসেন্স বাতিলের ব্যবস্থা থাকতে পারে বিইআরসি। এসময় উপস্থিত ছিলেন জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব মো. নুরুল আলম, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান জনেন্দ্র নাথ সরকার, বিইআরসির সচিব ব্যারিস্টার মো. খলিলুর রহমান খান। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বুয়েটের যন্ত্রকৌশল বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ড. মাকসুদ হেলালী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিইআরসির সদস্য ড. মো. হেলাল উদ্দিন। যাযাদ/ এসএম
Published on: 2023-09-24 10:40:08.860934 +0200 CEST