যায়যায়দিন
ভোলা-৩ আসনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের পোস্টার লাগানোর সময় সন্ত্রাসী হামলা

ভোলা-৩ আসনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের পোস্টার লাগানোর সময় সন্ত্রাসী হামলা

ভোলা-৩ আসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৭তম জন্মদিন উপলক্ষে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য ইঞ্জনিয়ার আবু নোমান হাওলাদারের পক্ষে পোস্টার লাগানোর সময় সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা। ২৭ ও ২৮ সেপ্টেম্বর লালমোহন-তজুমদ্দিনের বিভিন্ন স্থানে পোস্টার লাগানো কে কেন্দ্র করে এ হামলার ঘটনা ঘটে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় লালমোহন উপজেলার বদরপুর ইউনিয়ন দেবীর চর বাজারে পোষ্টার লাগানোর সময় বদরপুর ইউনিয়নের চিহ্নিত সন্ত্রাসী মহিজল মেলকার, টিটব মেলকার, রাসেল মেলকার, সায়েদুল মেলকার, রাশেদ মেলকার ও কামালের নেতৃত্বে অন্তত ২০ জনের একটি সন্ত্রাসী বাহিনী ওয়ার্ড ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ রোমান মেলকারকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে এবং শ্রমিক লীগ নেতা আল-আমিন হাওলাদার, আওয়ামী লীগ নেতা আতাউর মাতাব্বর ও আওয়ামী লীগ নেতা আজাহার হাওলাদারকে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। ধলীগৌরনগর ইউনিয়ন নুরুল্লাহ বাজারে ধলীগৌরনগর ইউনিয়নের চিহ্নিত সন্ত্রাসী মান্নান মৃধা, রিয়াজ পাটওয়ারী, মোঃ হারুন ও মিজান সহ কয়েক জন সন্ত্রাসী আওয়ামী লীগ কর্মী মোঃ সোহেল রানাকে । পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়ন গজারিয়া বাজারে লালমোহনের চিহ্নিত সন্ত্রাসী সজীব পঞ্চায়েত ও বাটটু পঞ্চায়েত এর নেতৃত্বে ১০/১২ জন সন্ত্রাসী আওয়ামী লীগ নেতা পিন্টু সিকদারকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। একই দিন তজুমদ্দিন উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়ন পাটওয়ারী দোকান বাজারে চাঁদপুর ইউনিয়নের চিহ্নিত সন্ত্রাসী মোঃ শরীফ, মোঃ কামাল, মোঃ ইউনুছ ও মোঃ জসিমের নেতৃত্বে কয়েকজন সন্ত্রাসী আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ জহির পাটওয়ারীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এছড়াও ২৮ সেপ্টেম্বর পোষ্টার লাগানো কে কেন্দ্র করে লালমোহন উপজেলার বদরপুর ইউনিয়ন দেবীর চর বাজারে বদরপুর ইউনিয়নের চিহ্নিত সন্ত্রাসী মহিজল মেলকার, টিটব মেলকার, রাসেল মেলকার ও রাশেদ মেলকারের নেতৃত্বে কয়েকজন সন্ত্রাসী বদরপুর ইউনিয়ন সেচ্ছাসেবক লীগের সদ্য সাবেক সভাপতি কামরুল ইসলাম কাবিলকে তজুমুদ্দিন বাজারের দক্ষিন মাথা হাসপাতালের সামনে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী মিজান পোদ্দার, নৌকা রিয়াজ, সাদেক রিয়াজ, সবুজ (বেচু দালাল) ও নজরুল (রফিক মুন্সী) এর নেতৃত্বে কয়েক জন সন্ত্রাসী যুবলীগ নেতা সামছুদ্দিন দর্জিকে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। ভুক্তভোগীরা জানান, আমাদের উপর যারা হামলা করেছেন তারা সবাই বর্তমান সাংসদ নুরুন্নবী চৌধুরী শাওনের রাজনীতির সাথে জড়িত এবং এদের অধিকাংশই ২০১০ পরবর্তী সময়ে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছে। তারা আরও বলেন এই সন্ত্রাসীরা আমাদের ২০০১ সালে নির্যাতন করে এলাকা ছাড়া করেছে, এখন তারাই এমপির সাথে যুক্ত হয়ে আমাদের নির্যাতন করছে। এছাড়াও এই হামলার ঘটনায় লালমোহন-তজুমদ্দিন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা তীব্র নিন্দা জানান ও সেই সঙ্গে হামলায় জড়িত চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের বিচার দাবি করেন।
Published on: 2023-09-28 13:50:57.213388 +0200 CEST