যায়যায়দিন
গাজীপুরে কলেজ শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

গাজীপুরে কলেজ শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

জমি নিয়ে বিরোধের জেরে কলেজ শিক্ষক ভাইকে পিটিয়ে হত্যা হত্যার অভিযোগ উঠেছে ছোট ভাই ও দুই ভাতিজার বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সাজনধারা গ্রামে। ঘটনার পর থেকে ভাই ও ভাতিজারা পলাতক রয়েছেন। নিহত হলেন, কালিয়াকৈর উপজেলার সাজনধারা গ্রামের আফাজ উদ্দিনের ছেলে রেজা সাঈদ আল মামুন (৫৫)। তিনি উপজেলার চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজের অর্থনীতি বিভাগের প্রধান ছিলেন। নিহতের পরিবার ও পুলিশ জানায়, কলেজ শিক্ষক রেজা সাঈদ আল মামুন অন্যান্য দিনের মতো রোববার সকালে কালেজে যান। দুপুরের পর তিনি কলেজ থেকে বাড়ি ফিরেন। বাড়িতে গিয়ে দুপুরের খাবার খেয়ে বাড়ির পাশে একটি খেতে জমে থাকা আগাছা পরিস্কার করে এবং আইল কাটা শুরু করেন। জমিতে কাজ করা অবস্থায় পিছন দিক থেকে হঠাৎ তার ছোট ভাই মজিবুর ও তার ছেলে সুমন ও সেজান লাঠিশোঠা দিয়ে এলোপাথারী মারধোর করে গুরুতর জখম করে। খবর পেয়ে বাড়ির ও আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে তাকে হাসাপতালে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর থানা পুলিশ রাত ৮ টার দিকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন করেন। নিহতের শ্যালক আল মামুন জানান, তার বোন জামাই ভাইদের নির্যাতনের কারনে দীর্ঘদিন কালিয়াকৈর উপজেলার লতিফপুর এলাকায় বাসা নিয়ে ভাড়া থাকতেন। গত দুই বছর আগে তিনি আবার গ্রামের বাড়িতে চলে যান। সেখানে যাওয়ার পর ভাইদের সঙ্গে জমিজমা দিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। নিহতের মেয়ে সুমাইয়া শাহরিন বলেন,‘ আমার বাবা বাড়ির পাশের জমিতে কাজ করতে গেলে পিছন দিক থেকে হঠাৎ চাচা মজিবুর ও চাচাতো ভাই সুমন ও সেজান মারধোর করে হত্যা করে ফেলে রাখে। তারা পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী আমার বাবাকে হত্যা করেছে। এর আগেও কয়েকবার আমার বাবাকে তারা মেরেছে। কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম নাসিম বলেন, জমিজমা বিরোধকে কেন্দ্র করে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে। নিহতের শরীরে প্রচুর আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। যাযাদি/ এস
Published on: 2024-01-29 04:55:13.522736 +0100 CET