যায়যায়দিন
নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা থাকবে বিশ্ব ইজতেমা: আইজিপি

নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা থাকবে বিশ্ব ইজতেমা: আইজিপি

বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, দেশবাসীকে আমি অনুরোধ করবো ইজতেমা নিয়ে কেউ গুজবে কান দেবেন না। একটি মহল দেশের শান্তি শৃঙ্খলা নষ্ট করার জন্য চেষ্টা করে। সাম্প্রদায়িক শান্তি বিনষ্ট করার চেষ্টা করে বিভিন্ন দল, গ্রুপের, সম্প্রদায়ের মাঝে বিভেদ সৃষ্টির মাধ্যমে দেশের মধ্যে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়। নাগরিকবৃন্দকে তিনি অনুরোধ জানিয়ে বলেন, আপনারা তাদের গুজবে কান দেবেন না। ইজতেমাস্থলে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে, আমরা আপনাদের সেবায় নিয়োজিত আছি। তিনি টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমাস্থলে নিরাপত্তা পরিদর্শন করে বুধবার সকালে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়ামে স্থাপিত পুলিশের বিশ্ব ইজতেমা কন্টোল রুম চত্বরে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন। এসময় অতিরিক্ত আইজিপি (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) মো. আতিকুল ইসলাম, ঢাকা সিটি এসবি’র প্রধান ও অতিরিক্ত আইজিপি মো. মনিরুল ইসলাম, ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি মো. নুরুল ইসলাম, পুলিশ হেডকোয়ার্টারের (অপারেশন) ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন, গাজীপুর মহানগর পুলিশের কমিশনার মো. মাহবুব আলমসহ পুলিশের বিভিন্ন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। আইজিপি বলেন, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে আমাদের নিবিড় যোগাযোগ রয়েছে, তাদের কাছ থেকে আমরা সবসময় আমরা তথ্য পাচ্ছি। তথ্যের ভিত্তিতে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। হেলিকপ্টার ছাড়াও ড্রোন দিয়ে আমরা আমাদের নিরাপত্তা পরিকল্পনা সঠিক আছে কি-না এবং মানুষের গতিবিধি আমরা ওয়াচ করছি। ইজতেমাস্থলে বিদেশি মেহমানদের স্বাগত জানানোর জন্য এখানকার মুরুব্বীরা তাদের সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন বলে আমাদের অবহিত করেছেন। তাদের ব্যবস্থাপনারার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে আমরা আমাদের নিরাপত্তা পরিকল্পনা সাজিয়েছি এবং তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ট যোগাযোগ রেখে যেটা যেভাবে দরকার সেভাবেই আমাদের নিরাপত্তা পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। আইজিপি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভ্রান্তিমূলক কোন পোস্ট বা ছবি আপলোড করে কেউ যাতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে না পেরে সেজন্য আমাদের সাইবার মনিটরিং এবং সাইবার পেট্টোলিং জোরদার করা হয়েছে। ইজতেমার আগত মুসুল্লিগণ গমনাগমন স্বাভাবিক রাখার জন্য আমরা বিশেষ ট্রাফিক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে ইতোমধ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কয়েকটি মিটিং করেছেন, পুলিশ হেডকোয়ার্টারে আমরা মিটিং করেছি, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারও মিটিং করেছেন, জেলা প্রশাসক মিটিং করেছেন, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশও তাদের মিটিং করেছে। ইজতেমাস্থলে যেকোন সমস্যা হলে আপনারা এলাকাভিত্তিক ঢাকামহানগরের হলে ঢাকা মহানগর পুলিশের কন্ট্রোল রুম, গাজীপুর মহানগরের হলে গাজীপুর মহানগর পুলিশের কন্ট্রোল রুম, র‌্যাবের কন্ট্রোল রুমে, রেলওয়ে কন্ট্রেল পুলিশসহ বিভিন্ন ইউনিটের রুম অপনারা সকলে জরুরি প্রয়োজনে যোগাযোগ করতে পারেন। এছাড়া নিটস্থ থানায়ও জানাতে পারেন। সর্বোপরি আপনাদের কিছুই মনে না থাকলে ৯৯৯-এ ফোন করে দিবেন। সকলে আমরা আপনাদের সেবা দিতে প্রস্তুত আছি । আমি আশা করি, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ইজতেমা শান্তিপূর্ণভাবে সমাপ্ত হবে। কেউ যদি এখানকার ধর্মীয় ভাব গম্ভীর পরিবেশ নষ্ট করার অপচেষ্টা চালানোর পরিকল্পনা করে থাকে, তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমি আশা করি, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ইজতেমার যথাযথ নিরাপত্তা দিতে সক্ষম হবো। তিনি সাংবাদিকদেরও ইজতেমার সংক্রান্ত তথ্য দিয়ে সহযোগিতার অনুরোধ জানিয়েছেন। পুলিশের মহাপরিদর্শক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, আমরা প্রতিবার নিরাপত্তা ব্যবস্থা দিয়ে থাকি। বিশ্ব ইজতেমার ময়দান নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা থাকবে। যেকোন ধরনের পরিস্থিতি চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশ পুলিশের সক্ষমতা ও আস্থা রয়েছে। আমরা তাদের ব্রিফিং দিয়েছি প্রশিক্ষণ দিয়েছি, কে কখন কোথায় কিভাবে কখন তার দায়িত্ব কিভাবে পালন করবে সেভাবে তাদের প্রস্তুত করেছি। চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন আরও বলেন, বর্তমান নিরাপত্তায় বোম ডিসপোজাল ইউনিট, সোয়াট টিম, ডগ স্কোয়াড, বিস্ফোরক প্রশিক্ষক টিম, ট্রাইম সিন, চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই ও আমাদের প্রশিক্ষক টিম, নৌ বহর ও হেলিকপ্টার দিয়েও টহল ব্যবস্থা প্রস্তুত থাকবে। সোয়াট টিম থাকবে সিআরটি থাকবে। এছাড়া আমাদের পর্যাপ্ত সংখ্যক সিসি টিভি ক্যামেরা, আইপি ক্যামেরা ও নাইট ভিশন ক্যামেরা দিয়ে সার্ভিসেস করবো। এছাড়াও ওয়াচ টাওয়ার থাকবে, সাদা পোশাকে এবং পোশাকে পুলিশের সদস্যরা থাকবে। ইজতেমা স্থলে যদি ভিআইপি-ভিভিআইপিরা যদি আসেন তাদের নিরাপত্তাও বিষয়টিও বিবেচনায় রেখে নিরাপত্তা পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছি। নিরাপত্তা পরিকল্পনা শুধু মাত্র যে ইজতেমা স্থলে তা কিন্তু নয়, এ নিরাপত্তা পরিকল্পনা রেল স্টেশন থেকে শুরু করে, ঢাকা মেট্টোপলিটন পুলিশের এলাকা থেকে শুরু করে, গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশ, ঢাকা জেলা ঢাকা মেট্টোপলিটন পুলিশ সকলে মিলে আমরা সকলে মিলে একটি নিরাপত্তা পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। আমরা বিভিন্ন ইউনিট র‌্যাব, টুরিস্ট পুলিশ, নৌ পুলিশ ও আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ান আছে আছে আমরা সকলে সমন্বয় করে নিরাপত্তা পরিককল্পনা গ্রহণ করেছি। যাযাদি/ এসএম
Published on: 2024-01-31 09:56:54.638221 +0100 CET