যায়যায়দিন
নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের ২৪০ পরিবারকে সরিয়ে নিতে প্রশাসনের নির্দেশ

নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের ২৪০ পরিবারকে সরিয়ে নিতে প্রশাসনের নির্দেশ

মিয়ানমারে সংঘাত চলমান থাকায় বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের ২৪০ পরিবারকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) শাহ মুজাহিদ উদ্দিন। মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত পরিদর্শনকালে এ নির্দেশ দেন ডিসি। ডিসি শাহ মুজাহিদ উদ্দিন বলেন, বান্দরবান-মিয়ানমার সীমান্তে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে সংঘাত চলছে। এ পরিস্থিতির কারণে শিক্ষার্থী ও সীমান্তের অতি ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার বাসিন্দাদের (২৪০ পরিবার) নিরাপদ আশ্রয়ে নেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত সীমান্তবর্তী স্কুলগুলো বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। বান্দরবানের ঘুমধুম ও তুমব্রু সীমান্ত পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার। বিকেল ৩টায় নাইক্ষ্যংছড়ির তুমব্রু সীমান্ত পয়েন্ট পরির্দশন করে ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদে যান তারা। পরে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে জলপাইতলী এলাকা যান তারা। সেখানে মিয়ানমারের ছোড়া মর্টারশেলের আঘাতে নিহত হোসনে আরার পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন ডিসি। সেই সঙ্গে প্রশাসনে পক্ষ থেকে হোসনে আরার পরিবারকে ২০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দেন। পরির্দশন শেষে সার্বিক অবস্থা নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন জেলা প্রশাসক। যাযাদি/এসএস
Published on: 2024-02-06 14:54:21.687955 +0100 CET