প্রথম আলো
যৌন নিপীড়নের অভিযোগ জগন্নাথের শিক্ষককে বহিষ্কার, চেয়ারম্যানকে অব্যাহতি

যৌন নিপীড়নের অভিযোগ জগন্নাথের শিক্ষককে বহিষ্কার, চেয়ারম্যানকে অব্যাহতি

এক ছাত্রীর যৌন নিপীড়ন অভিযোগের প্রেক্ষাপটে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন বিভাগের দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। যাঁর বিরুদ্ধে ওই ছাত্রী যৌন নিপীড়নের অভিযোগ করেছেন, তিনি ওই বিভাগের শিক্ষক আবু শাহেদ ইমন। তাঁকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। আর মেয়েটি এই অভিযোগ করার পর তাঁকে হেনস্তায় পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ তুলেছিলেন তিনি। এ ঘটনায় অধ্যাপক জুনায়েদ আহমদ হালিমকে বিভাগের চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীর অভিযোগ নিয়ে আলোচনা ও নানামুখী তৎপরতার মধ্যে আজ বৃহস্পতির জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জরুরি সিন্ডিকেট সভা হয়। সেখানে দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে এসব ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয় বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আইনুল ইসলাম প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন।অধ্যাপক আইনুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, সিন্ডিকেট সভায় ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন বিভাগের অভিযুক্ত প্রভাষক আবু শাহেদ ইমনকে সাময়িক বহিষ্কার এবং অভিযুক্ত আরেক শিক্ষক (অধ্যাপক জুনায়েদ আহমদ হালিমকে) চেয়ারম্যানের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।সম্প্রতি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ফাইরুজ সাদাফ অবন্তিকার আত্মহত্যার ঘটনায় যৌন হয়রানি ও নানা নিপীড়নের বিরুদ্ধে সোচ্চার হন ওই শিক্ষার্থী। গত সোমবার তিনি ডিবিতে গিয়ে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে আবেদন করেন। বিষয়টি নিয়ে ওই ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিনের কাছেও একটি আবেদন করেন।এ ঘটনায় গতকাল বুধবার দুপুরে জগন্নাথের ওই দুই শিক্ষক এবং ওই ছাত্রীকে রাজধানীর মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে ডেকে নেওয়া হয়। সেখানে ডিবি কর্মকর্তারা ওই শিক্ষার্থীর সঙ্গে আলাদাভাবে কথা বলার পাশাপাশি দুই শিক্ষককে তাঁর মুখোমুখি করেও কথা বলেন। এর পরদিন বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট থেকে দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেওয়া হল।
Published on: 2024-03-21 14:15:21.985704 +0100 CET