The Business Standard বাংলা
বিএনপি সন্ত্রাসী দল, তাদের রাজনীতি করার অধিকার নেই: বরিশালে প্রধানমন্ত্রী

বিএনপি সন্ত্রাসী দল, তাদের রাজনীতি করার অধিকার নেই: বরিশালে প্রধানমন্ত্রী

বিএনপিকে 'সন্ত্রাসী দল' উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দলটির রাজনীতি করার অধিকার বাংলাদেশে নেই। 'কারণ তারা মানুষ পোড়ায়, মানুষ হত্যা করে। আমাদের রাজনীতি মানুষের কল্যাণে, আর ওদের রাজনীতি মানুষ হত্যায়। তাদের কি মানুষ চায়, বলেন? তাদের মানুষ চায় না,' বলেন প্রধানমন্ত্রী। শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) বিকেলে বরিশালের বঙ্গবন্ধু উদ্যানে আওয়ামী লীগের নির্বাচনি জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'আমরা যখন জনগণের জন্য উন্নয়ন করি, তখন বিএনপি-জামায়াত করে অগ্নিসন্ত্রাস। রেললাইনের ফিসপ্লেট ফেলে দিয়ে, বগি ফেলে দিয়ে মানুষ হত্যার ফাঁদ পাতে।' বিএনপি আবারও অগ্নিসন্ত্রাস শুরু করেছে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'রেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়েছে। মা সন্তানকে বুকে জড়িয়ে রেখেছে, এ অবস্থায় আগুনে পুড়ে কাঠ হয়ে গেছে — এ দৃশ্য পুরো বিশ্ব বিবেককে নাড়া দিয়েছে। বাসে আগুন, গাড়িতে আগুন; ঠিক ২০০১ সালে শুরু করেছিল। এরপর '১৩-'১৪ সালে একই ঘটনা ঘটায়। এখন আবার অগ্নিসন্ত্রাস শুরু করেছে। আমি ধিক্কার জানাই বিএনপি-জামায়াতকে।' শেখ হাসিনা বলেন, 'জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শূন্য হাতে বাংলাদেশ বিনির্মাণের যাত্রা শুরু করেছিলেন। তিনি যখন দায়িত্ব নেন তখন মাথাপিছু আয় ছিল ৯১ ডলার। তিনি দায়িত্ব নেওয়ার তিন বছরের মধ্যে তা ২৭৭ ডলারে উন্নীত করেন।' ১৯৭৫ সালে জাতির জনককে হত্যা নয়, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে হত্যা করা হয়েছিল উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'এরপর অবৈধভাবে জিয়া, এরশাদ ক্ষমতায় আসে। তারা মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করতে পারেনি।' শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকাকালীন উন্নয়নে দেশের সোনালি সময় ছিল। 'দুর্ভাগ্য, চক্রান্ত করে ২০০১ সালে আমাকে ক্ষমতায় আসতে দেওয়া হয়নি। বরিশালে নেতাকর্মীদের যে নির্যাতন করা হয়েছিল তা অবর্ণনীয়। ২০০১ থেকে ২০০৬ ছিল মানুষের সবচেয়ে বড় অন্ধকার যুগ। বরিশাল থেকে ২৫ হাজার লোক গোপালগঞ্জে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছিলেন,' বলেন ক্ষমতাসীন দলের প্রধান। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, 'আজ ২০২৩ সাল; আমরা বদলে যাওয়া বাংলাদেশে। আজকে দুর্ভিক্ষ নেই, মঙ্গা নেই। মানুষ এখন তিন বেলা খেতে পারছে। বই বিনামূলে বিতরণ করছি। অসহায়দের ভাতা দিচ্ছি। আজকে ১০ কোটি মানুষ উপকারভোগী।' তিনি বলেন, 'বরিশাল একসময় ছিল শস্যভান্ডার। আবার আমরা সেই ভান্ডারের সুনাম ফেরাতে সাইলো নির্মাণ করছি।' কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসেন ও বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো. ইউনুস জনসভার সঞ্চালনা করেন। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঝালকাঠি-১ (রাজাপুর-কাঁঠালিয়া) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ, বরিশাল-৬ আসনের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবদুল হাফিজ মল্লিক, ১৪ দলের মুখপাত্র আমির হোসেন আমু, জাহাঙ্গীর কবির নানক, ওয়ার্কার্স পার্টির চেয়ারম্যান রাশেদ খান মেনন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু ও ডা. শাম্মী আহমেদ।
Published on: 2023-12-29 14:51:14.073346 +0100 CET