The Business Standard বাংলা
স্বর্ণার বোলিং জাদুতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে স্মরণীয় জয় বাংলাদেশের

স্বর্ণার বোলিং জাদুতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে স্মরণীয় জয় বাংলাদেশের

আগে ব্যাট হাতে রানের দেখা পেলেন বাংলাদেশের প্রায় সব ব্যাটারই। যেখানে নেতৃত্ব দিলেন মুর্শিদা খাতুন ও অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি। দুজনই টি-টোয়েন্টি মেজাজে ব্যাটিং করে দলের স্কোরকার্ড করলেন সমৃদ্ধ। পরে দক্ষিণ আফ্রিকাকে একাই দিক ভুলিয়ে দিলেন স্বর্ণা আক্তার। দারুণ শুরুর পরও বাংলাদেশের ডানহাতি এই লেগ স্পিনারের তোপে মুখে কুলিয়ে উঠতে পারলো না স্বাগতিকরা। স্মরণীয় জয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর শুরু হলো বাংলাদেশের মেয়েদের। রোববার বেনোনিতে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ১৩ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। সংক্ষিপ্ততম এই ফরম্যাটে দীর্ঘ ১১ বছর পর প্রোটিয়াদের হারালেন নিগার-স্বর্ণারা। দুই দলের প্রথম সাক্ষাতে ২০১২ সালে মিরপুরে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৭ উইকেটে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। এরপর ১০টি ম্যাচে হার মানে বাংলাদেশ, ১২তম ম্যাচে এসে দেখা মিললো দ্বিতীয় জয়ের। টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নামে বাংলাদেশ। মুর্শিদার হাফ সেঞ্চুরি ও অধিনায়ক জ্যোতির ঝড়ো গতির ইনিংসের সুবাদে ২ উইকেটে ১৪৯ রান তোলে তারা। টি-টোয়েন্টিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এটাই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ, সব মিলিয়ে চতুর্থ সর্বোচ্চ। জবাবে উদ্বোধনী জুটি থেকে ৬৯ রান পাওয়ার পরও জয়ের হাসি হাসতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। ৫ উইকেট নিয়ে স্বাগতিকদের ইনিংস ১৩৬ রানেই থামিয়ে দেন ম্যাচসেরার পুরস্কার জেতা অলরাউন্ডার স্বর্ণা। লক্ষ্য তাড়ায় দারুণ শুরু করে দক্ষিণ আফ্রিকা। উদ্বোধনী জুটিতে ৬৯ রান যোগ করেন আন্নেকে বস্ক ও অধিনায়ক তাজমিন ব্রিটস। ২৬ বলে ৩০ রান করা তাজমিনকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে ব্রেকথ্রু এনে দেন রাবেয়া খান। তিন রান পরই ডার্কসেনকে ফেরান ফাহিমা খাতুন। এরপর শুরু হয় স্বর্ণার তোপ, লিগ স্পিনের স্বাগতিকদের দিশেহারা করে তোলেন তিনি। এরপরও আন্নেকে অবশ্য আরও অনেকটা পথ পাড়ি দেন, প্রোটিয়াদের ইনিংসের সর্বোচ্চ রান করেন তিনি। স্বর্ণার শিকারে পরিণত হওয়ার আগে ৪৯ বলে ৯টি চার ও একটি ছক্কায় ৬৭ রান করেন স্বাগতিক এই ওপেনার। এরপর সুনে লুস ১৮ ও ডেলমি টাকার ১৫ রান করেন। বাকিরা কেউ দলকে এগিয়ে নিতে পারেননি, দলটির মাত্র চারজন ব্যাটার দুই অঙ্কের রান করেন। স্মরণীয় জয়ে বল হাতে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া স্বর্ণা ৪ ওভারে ২৮ রান খরচায় ৫টি উইকেট নেন, যা তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিং। এই ফরম্যাটে এটা বাংলাদেশের চতুর্থ সেরা বোলিং। দেশের চতুর্থে বোলার হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে ৫ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়লেন স্বর্ণা। নাহিদা আক্তার, ফাহিমা খাতুন ও রাবেয়া খান একটি করে উইকেট পান। এর আগে ব্যাটিং করা বাংলাদেশকে পুরোটা পথ নেতৃত্ব দেন মুর্শিদা। ইনিংস উদ্বোধন করতে নেমে শেষ পর্যন্ত খেলেন তিনি। ৫৯ বলে ৬টি চার ও একটি ছক্কায় ৬২ রানে অপরাজিত থাকেন বাঁহাতি এই ওপেনার। ২৪ বলে ৪টি চার ও একটি ছক্কায় ২৪ রান করেন শামিমা সুলতানা। ১৭ বলে ৩টি চারে ১৬ রান করেন সোবানা মোস্তারী। ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ২১ বলে হার না মানা ৩৪ রান করেন অধিনায়ক জ্যোতি। দক্ষিণ আফ্রিকার এলিজ-মারি মার্কস ও ননদুমিসো শানগাসে একটি করে উইকেট পান।
Published on: 2023-12-03 17:08:55.420584 +0100 CET