The Business Standard বাংলা
৩ মাস পর ৫ বিলিয়নের নিচে নামল রপ্তানি আয়

৩ মাস পর ৫ বিলিয়নের নিচে নামল রপ্তানি আয়

আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় গেল ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশের পণ্যদ্রব্য রপ্তানি ৭.৮১ শতাংশ বেড়ে ৪.৬৩ বিলিয়ন ডলার হয়েছে। এর পেছনে প্রধান অবদান রাখে, প্রধান রপ্তানি খাত পোশাক শিল্পের রপ্তানি চালানগুলো। তবে ফেব্রুয়ারিতে দেশের রপ্তানি আয় ৫ বিলিয়ন ডলারের নিচেও নেমেছে। আগের তিন মাসে যা এর চেয়ে উচ্চ ছিল। আজ বৃহস্পতিবার (২ মার্চ)  রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) প্রকাশিত ব্যুরোর তথ্য থেকে যা জানা গেছে। জানুয়ারিতে বাংলাদেশ ৫.১৩ বিলিয়ন ডলারের রপ্তানি আয় অর্জন করে। ডিসেম্বরে করেছিল ৫.৩৭ বিলিয়ন এবং নভেম্বরে ৫.০৯ বিলিয়ন ডলার। নভেম্বরেই তা প্রথমবারের মতো পাঁচ বিলিয়ন ডলারের ঘর ছাড়ায়। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলোর মতে, সার্বিকভাবে মাসিক লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে সামান্য কম হয়েছে ফেব্রুয়ারির রপ্তানি আয়। তবে এই মাসের জন্য নির্ধারিত পোশাকপণ্য রপ্তানির কৌশলগত লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়েছে। ইপিবির তথ্যমতে গেল মাসে দেশের পণ্যদ্রব্য রপ্তানির আয় ছিল ৪.২৯ বিলিয়ন ডলার। ফেব্রুয়ারিতে পণ্য রপ্তানি প্রবৃদ্ধিতে পোশাক খাতের আধিপত্যই বজায় ছিল। এসময় ১২.৩১ শতাংশ প্রবৃদ্ধিসহ ৩.৯৪ বিলিয়ন ডলারের পোশাকপণ্য রপ্তানি হয়েছে। সংশ্লিষ্ট শিল্পের ব্যক্তিরা বলেছেন, উচ্চ মূল্যের পোশাকের চালানের কারণেই মূলত পোশাক রপ্তানির অংক বেড়েছে। অনেক ক্রেতা ব্রান্ড চীন থেকে সরে আসায়, এসব অর্ডার পায় বাংলাদেশ। নিট পোশাক রপ্তানি চালানেও আগের বছরের চেয়ে ১৬.৯৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। নিট পোশাক রপ্তানি হয়েছে ২.০৯ বিলিয়ন ডলারের। অন্যদিকে, ৭.৪৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধিসহ ওভেন পোশাক রপ্তানি হয়েছে ১.৮৪ বিলিয়ন ডলারের।
Published on: 2023-03-02 12:10:54.123748 +0100 CET