The Business Standard বাংলা
চলতি বছর ১০,০০০ বাংলাদেশি কর্মী নেবে দক্ষিণ কোরিয়া: রাষ্ট্রদূত

চলতি বছর ১০,০০০ বাংলাদেশি কর্মী নেবে দক্ষিণ কোরিয়া: রাষ্ট্রদূত

এ বছর ১০,০০০ বাংলাদেশি প্রবাসী কর্মী নেওয়ার পরিকল্পনা করেছে দক্ষিণ কোরিয়া সরকার। মঙ্গলবার (১৬ মে) গণভাবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বিদায়ী সাক্ষাৎ করতে এসে বিদায়ী কোরিয়ান রাষ্ট্রদূত লি জাং-কুন এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, ২০২১ সাল পর্যন্ত প্রায় ১ হাজার ৫০০ বাংলাদেশি শ্রমিককে এমপ্লয়মেন্ট পারমিট সিস্টেমের (ইপিএস) আওতায় কোরিয়ায় পাঠানো হয়েছিল। তবে ২০২২ সালে এই সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়ে ৫ হাজার ৮৯১ জনে দাঁড়ায়। জাং-কুন আরও বলেন, গত এক-দুই বছরে প্রবাসী কর্মী নেওয়ায় উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি করেছে তার দেশ। কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য, আনুষ্ঠানিক উন্নয়ন সহায়তা, কর্মসংস্থান ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির ওপর জোর দেন। রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশের জাহাজ নির্মাণ খাত থেকে দক্ষ জনশক্তি নিতে আগ্রহী তার দেশ। কোরিয়া সরকার ২০২৩ থেকে ২০২৭ সাল পর্যন্ত সহজ শর্তে ঋণ কর্মসূচি ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট কোঅপারেশন ফান্ডের আওতায় বাংলাদেশকে ৩ বিলিয়ন ডলার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ২০২০ সালে বাংলাদেশে আসেন রাষ্ট্রদূত জাং-কুন। ওই সময় কোরিয়ার প্রতিশ্রুতি তিন বছরের জন্য ৫০০ মিলিয়ন ডলার। লি জাং-কুন আরও বলেন, ২০২২ সালে কোরিয়া বাংলাদেশে বৃহত্তম বিদেশী প্রত্যক্ষ বিনিয়োগকারী হয়ে ওঠে। গত বছর দেশটি বাংলাদেশে ৬৬৩ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করে। তিনি জানান, ২০২২ সালে কোরিয়া ও বাংলাদেশের মধ্যে বাণিজ্য ৩ বিলিয়ন ডলার এবং ২০২১ সালে প্রথমবারের মতো ২ বিলিয়ন ডলার ছারায় ছাড়ায়। করোনা মহামারির আগে প্রায় এক দশক দুই দেশের বাণিজ্য ১.৫ থেকে ১.৮ বিলিয়ন ডলারের মধ্যে ঘোরাফেরা করত। বৈঠকে চলাকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্রদূত লি জাং-কুনকে বাংলাদেশে তার কার্যকালের সফল সমাপ্তির জন্য অভিনন্দন জানান এবং কোরিয়া-ব্যাংলাদেশের সম্পর্ককে আরও জোরদার করার প্রচেষ্টার জন্য ধন্যবাদ জানান।
Published on: 2023-05-16 14:26:55.94999 +0200 CEST