The Business Standard বাংলা
যুক্তরাষ্ট্রে সজীব ওয়াজেদ জয়কে ‘হত্যার ষড়যন্ত্রে’ মাহমুদুর রহমান ও শফিক রেহমানসহ ৫ জনের সাত বছরের কারাদণ্ড

যুক্তরাষ্ট্রে সজীব ওয়াজেদ জয়কে ‘হত্যার ষড়যন্ত্রে’ মাহমুদুর রহমান ও শফিক রেহমানসহ ৫ জনের সাত বছরের কারাদণ্ড

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আইসিটিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়কে যুক্তরাষ্ট্রে 'অপহরণ ও হত্যার ষড়যন্ত্রের' অভিযোগে দায়ের করা মামলায় দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার সাবেক ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান ও সাংবাদিক শফিক রেহমানসহ পাঁচজনকে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (১৭ আগস্ট) ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ আসাদুজ্জামান নূর এ রায় দেন বলে আদালত সূত্র দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড কে নিশ্চিত করেছে। এছাড়া বিএনপির সাংস্কৃতিক শাখা জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থার (জাসাস) সাবেক সহসভাপতি মোহাম্মদ উল্লাহ মামুন ও তার ছেলে রিজভী আহমেদ ওরফে সিজার এবং যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান ভূঁইয়াকে দণ্ডবিধি ৩৬৫/১২০খ ধারায় পাঁচ বছর এবং ১২৩/১২০খ ধারায় আরও দুই বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এছাড়া এসব অভিযোগে প্রত্যেক আসামিকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে, অন্যথায় আরও দুই মাস কারাভোগ করতে হবে। এর আগে ২০২২ সালের ১৩ নভেম্বর সজীব ওয়াজেদ জয় যুক্তরাষ্ট্রে তাকে অপহরণ ও হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগে সাংবাদিক শফিক রেহমান ও অপর পাঁচজনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় সাক্ষ্য দেন। ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মুহাম্মদ আসাদুজ্জামান নূর মামলার ১৫ সাক্ষীর মধ্যে দশম সাক্ষী হিসেবে তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। ঢাকা মেট্রোপলিটন পাবলিক প্রসিকিউটর আবদুল্লাহ আবু গণমাধ্যমকে বলেন, 'জবানবন্দিতে জয় বলেন, তাকে হত্যার ষড়যন্ত্রে বিএনপির উচ্চ পর্যায়ের নেতারা জড়িত ছিলেন। এ ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রে মামলাও হয়েছে। সেখানে এফবিআই এজেন্ট রবার্ট ল্যাকটিটসহ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে, শাস্তিও দেওয়া হয়েছে।' পাবলিক প্রসিকিউটর বলেন, জয় মার্কিন মামলায়ও সাক্ষ্য দিয়েছেন। তিনি বলেন, 'বাংলাদেশে সাংবাদিক শফিক রেহমানের বাসায় বসে ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। পরে শফিক রেহমানের বাড়ি থেকে বিভিন্ন নথি জব্দ করা হয়।' জয় আদালতে বিচার চেয়েছেন বলে জানান আব্দুল্লাহ আবু। অভিযোগে বলা হয়, ২০১১ সালের সেপ্টেম্বরের আগে যেকোনো সময় জাসাসের সহসভাপতি মোহাম্মদ উল্লাহ মামুনসহ বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোটের অন্যান্য নেতারা ঢাকার পল্টনে জাসাস কার্যালয়ে এবং যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহর ও যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় একত্র হয়ে বৈঠকে অংশ নেন। তারা সজীব ওয়াজেদ জয়কে যুক্তরাষ্ট্রে অপহরণ করে হত্যার ষড়যন্ত্র করেন। এ ঘটনায় ২০১৫ সালের ৩ আগস্ট ডিবি পুলিশের তৎকালীন পরিদর্শক ফজলুর রহমান বাদী হয়ে পল্টন মডেল থানায় মামলা করেন। দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার সাবেক ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান, জাসাসের সাবেক সহসভাপতি মোহাম্মদ উল্লাহ মামুন ও তার ছেলে রিজভী আহমেদ ওরফে সিজার এবং যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান ভূঁইয়াকে আসামি করা হয়। পরে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে পুলিশ অভিযোগপত্র দাখিল করে এবং সাংবাদিক শফিক রেহমানকে মামলার আসামি হিসাবে অন্তর্ভুক্ত করে।
Published on: 2023-08-17 17:48:49.903276 +0200 CEST