The Business Standard বাংলা
চীনের মহাসাগরীয় জোটে এখনই যোগদান করছে না বাংলাদেশ

চীনের মহাসাগরীয় জোটে এখনই যোগদান করছে না বাংলাদেশ

চীনের উদ্যোগে গঠিত চীন-ইন্ডিয়ান ওশান রিজিওনাল ফোরাম অব ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন নেটওয়ার্কে এখনই যোগদান করছে না বাংলাদেশ। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা 'ভূরাজনৈতিক সমস্যার' কথা উল্লেখ করে বলেছেন, এ বিষয়ে আরো পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রয়োজন। গত ২০ জুলাই পররাষ্ট্র মন্ত্রণলায় একটি আনুষ্ঠানিকি চিঠির মাধ্যমে ফোরামে যোগদানের বিষয়ে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগকে তার অবস্থান জানায়। এর আগে চীনের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে এ বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মন্তব্য জানতে চায় অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ। মন্তব্যে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, এই ফোরাম চীনের বৈশ্বিক উন্নয়ন উদ্যোগের অংশ এবং জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যগুলির সাথে এর সম্পর্ক আছে। তবে এর ভূ-রাজনৈতিক এবং ভূ-কৌশলগত প্রভাবের কারণে বিষয়টি আরও বিবেচনার দাবি রাখে। মন্ত্রণালয় বিশ্বাস করে, ফোরামে যোগদানের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে সমস্ত প্রাসঙ্গিক দিক এবং সুবিধা এবং অসুবিধাগুলি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে যাচাই করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷ গত বছরের ২১ নভেম্বর, চীন আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সহযোগিতা সংস্থা (সিডকা), দক্ষিণ-পশ্চিম চীনা শহর কুনমিং-এ প্রথম 'চীন-ভারত মহাসাগর অঞ্চল ফোরাম' আয়োজন করে। সিডকা এক বিবৃতিতে বলে, ফোরামটি চীন এবং ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে যৌথভাবে অনুষ্ঠিত প্রথম উচ্চ-স্তরের সরকারি উন্নয়ন সহযোগিতা ফোরাম। ভারত মহাসাগরের সীমান্তবর্তী ১৯টি দেশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ ১০০ জনেরও বেশি ব্যক্তিত্ব সেদিন যোগদান করে। অস্ট্রেলিয়া ও মালদ্বীপ জানায়, তারা এই বৈঠকে কোনো সরকারি প্রতিনিধি পাঠায়নি। এই বৈঠকে ভারতকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। বাংলাদেশ ইন্ডিয়ান ওশান রিম অ্যাসোসিয়েশন (আইওআরএ) এর সদস্য এবং বর্তমান চেয়ারম্যান। এই আন্তঃসরকারি সংস্থার লক্ষ্য ভারত মহাসাগরের সীমান্তবর্তী দেশগুলির মধ্যে আঞ্চলিক সহযোগিতা এবং টেকসই উন্নয়নের প্রচার করা। ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া সংস্থাটি অস্ট্রেলিয়া এবং ভারতসহ ভারত মহাসাগর অঞ্চলের ২৩টি রাজ্য নিয়ে গঠিত। এছাড়াও, চীন আইওআরএ-এর পর্যবেক্ষক, যার সদর দফতর মরিশাসে অবস্থিত। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, এটি আইওআএ-এর প্রতি চীনের পাল্টা উদ্যোগ। কারণ চীন ভারত মহাসাগর অঞ্চলে তার অবস্থানকে শক্তিশালী করতে চায়। যে অঞ্চল সমুদ্রবাহিত বাণিজ্যের বিবেচনায় খুবই গুরুত্বপূর্ণ আইওআরএ-এর মতে, বিশ্বের সমুদ্রপথে তেল বাণিজ্যের ৮০ শতাং হয় এই রুটে।  প্রতি বছর ভারত মহাসাগরে প্রায় এক লাখ বাণিজ্যিক জাহাজ চলাচল করে। এসব তথ্যই সমুদ্রপথে ভারত মহাসাগরের গুরুত্ব স্পষ্ট করে। সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের বিশিষ্ট ফেলো অধ্যাপক মুস্তাফিজুর রহমান বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ (বিআরআই), সামুদ্রিক প্রচেষ্টা এবং সিল্ক রুটের মতো বিভিন্ন উদ্যোগে চীনের ভূ-কৌশলগত আগ্রহের কথা তুলে ধরেন। যোগদান প্রসঙ্গে তিনি বলেন, 'বাংলাদেশ খোলা মনে একাধিক ফোরামের সাথে জড়িত থাকার কথা বিবেচনা করতে পারে, যতক্ষণ পর্যন্ত কোন স্বার্থগত বিরোধ না থাকে।
Published on: 2023-08-09 13:09:40.453584 +0200 CEST