The Business Standard বাংলা
আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য হবে: নিউইয়র্কে নাগরিক সংবর্ধনায় প্রধানমন্ত্রী

আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য হবে: নিউইয়র্কে নাগরিক সংবর্ধনায় প্রধানমন্ত্রী

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য করার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, 'ইনশাআল্লাহ বাংলাদেশে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে।' শুক্রবার সন্ধ্যায় একটি হোটেলে নিউইয়র্ক সিটি আওয়ামী লীগ আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) ৭৮তম অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী এখন নিউইয়র্কে রয়েছেন। আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেছেন, বিএনপি নির্বাচন চায় না। তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, 'আসলে বিএনপি কি নির্বাচন চায়? তারা কীভাবে নির্বাচন চায়? তাদের নেতা কে?' প্রধানমন্ত্রী বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, 'পলাতক আসামি, টাকা চোর, অস্ত্র চোরাকারবারি, খুনি, ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলাকারী (তাদের নেতা); তিনি যদি একটি দলের নেতা হন, তবে মানুষ কেন সেই দলকে এবং তাকে ভোট দেবে।' তিনি উল্লেখ করেন, বিএনপি ২০০৮ সালের নির্বাচনে ভোট পায়নি। সেই কারণে ২০১৪ সালের নির্বাচনে অংশ নেয়নি। বিএনপি নির্বাচন ঠেকানোর নামে অগ্নিসংযোগ করে মানুষ হত্যা করেছে বলেও উল্লেখ করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। তিনি বলেন, 'কত প্রাণ কেড়ে নিয়েছে? এখনো যদি দেখেন সেই পোড়া মানুষগুলোর মুখ; কী বীভৎস! যারা এটা করেছে তারা ঘৃণিত।' জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে আসন্ন নির্বাচনের বিষয়ে হাসিনা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করার অঙ্গীকার করেছেন। 'মানুষ সঠিকভাবে ভোট দেবে,' বলেন তিনি। তিনি বলেন, বাংলাদেশের মানুষ অন্তত এটা বুঝতে পেরেছে যে নৌকায় (আ. লীগের নির্বাচনী প্রতীক) ভোট দিয়ে তারা স্বাধীনতা পেয়েছে। নৌকায় ভোট দেওয়ার ফলে জনগণের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়েছে বলে আবারও উল্লেখ করেন তিনি। হাসিনা বলেন, সারা বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী স্বার্থান্বেষী মহলের অপপ্রচারে কর্ণপাত না করার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান। শেখ হাসিনা বলেন, 'বিশ্ব নেতারা যখন আজ (বাংলাদেশের সাফল্য) স্বীকৃতি দিচ্ছেন, তখন কিছু লোক কী বলছে তাতে আমাদের মনোযোগ দেওয়ার দরকার নেই।' তিনি উল্লেখ করেন, সাজাপ্রাপ্তরা, যারা বিভিন্ন অপরাধ করেছে, তারা বিভিন্ন উপায়ে তাদের চাকরি হারিয়েছে। 'এখন তারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নিয়েছে এবং তাদের অপকর্ম ঢাকতে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও অ্যাপের মাধ্যমে অপবাদ ছড়াচ্ছে,' তিনি বলেন। নিন্দুকদের মুখোশ উন্মোচন করার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে হাসিনা বলেন, মিথ্যাচার করলে তাদের চরিত্র উন্মোচন করা উচিত।
Published on: 2023-09-23 13:04:51.847331 +0200 CEST